ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: আদালতের নির্দেশ অমান্য করায় বর্ধমানের পূর্বস্থলী থানার প্রাক্তন আইসি সোমনাথ দাসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলেন বর্ধমান আদালতের মাদক সংক্রান্ত বিশেষ আদালতের বিচারক নন্দন দেব বর্মণ৷

গত বছর এপ্রিল মাসে গাঁজা কেসের একটি ঘটনায় বারবার আদালত নির্দেশ দিলেও সাক্ষ্য দিতে না আসেননি প্রাক্তন আইসি সোমনাথ দাস৷ তাই বাধ্য হয়ে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলেন বর্ধমান আদালতের মাদক সংক্রান্ত বিশেষ আদালতের বিচারক নন্দন দেব বর্মণ। এই নির্দেশ কার্যকরী করতে জেলা পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। আগামী ১০ জানুয়ারি কেসের পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। ওই দিন প্রাক্তন ওসিকে আদালতে শেষ সাক্ষ্য দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে।

পড়ুন: রথ যাত্রা সফল করতে পানিহাটিতে মহাযজ্ঞ বিজেপির

আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে, গতবছর ১ এপ্রিল পূর্বস্থলী থানার পুলিশ গাঁজা কারবারে যুক্ত থাকার অভিযোগে হাসিবুল সেখ এবং আব্দুল বসিরউদ্দিনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছিল। তাদের বাড়ি বাবুইডাঙার পশ্চিম পাড়ায়। পুলিশের দাবি তল্লাশিতে ধৃতদের কাছ থেকে ২৩ কেজি গাঁজা উদ্ধার হয়। ওই ঘটনায় তল্লাশির সময় গেজেটেড অফিসার হিসাবে হাজির ছিলেন সোমনাথ বাবু। কিন্তু বারবার এই কেসে তাঁকে সাক্ষ্য দিতে আদালত সমন পাঠানো হলেও তিনি হাজির হননি।

এদিকে, বিচার প্রার্থীরা বিনা বিচারে সংশোধনাগারে কাটাচ্ছেন। বিচার প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে। আদালতে সাক্ষ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে তাঁর এই নিঃস্পৃহ ভাবের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিচারক। আর তারপরই তিনি সোমনাথ দাসের বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ না মানার দায়ে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন।