স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অসমের বাঙালিদের হয়ে বারবার সরব হওয়ার জন্য বিজেপি খুন করার ষড়যন্ত্র করেছে তাঁকে। শুক্রবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন ‘বাংলা পক্ষ’-এর প্রতিষ্ঠাতা গর্গ চট্টোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, “আমার প্রাণ বিপন্ন, তড়িঘড়ি আমাকে অসমে নিয়ে গিয়ে হয় পুলিশের হাতে কিংবা জনগণের হাতে ছেড়ে দিয়ে আমাকে অত্যাচার করা অথবা খুন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই সব চক্রান্তের যে লিখিত প্রমাণ রয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয় না।”
গর্গের কথায়, “আমার মুখ চিরতরে বন্ধ করে দেওয়ার তোড়জোড় চলছে।”

অহম সম্রাটকে অপমান করার অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দিয়েছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোওয়াল। জানা গিয়েছে, অসমে অহম সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা সম্রাট চাউলুং চুকাফাকে চিনা হানাদার বলে দাবি করে একাধিক টুইট করেন গর্গ। আর এতেই ভীষণ ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী সনোওয়াল। শুক্রবারই গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনারকে কলকাতায় গিয়ে গর্গকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দিয়েছে তিনি।

অহম সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রতিবছর ২ ডিসেম্বর চুকাফ দিবস বা অসম দিবস পালন করা হয় উত্তর-পূর্বের রাজ্যটিতে। সেই অনুষ্ঠান নিয়ে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোওয়ালের বিরুদ্ধেও টুইটারে তোপ দাগেন গর্গ চট্টোপাধ্যায়।

অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়ালকে টুইটে ট্যাগ করে র্গগ চট্টোপাধ্যায় লেখেন, “সর্বানন্দ সোনওয়াল কেন নিয়মিত চিনা আক্রমণ এবং তাঁদের সেনাদের নিয়ে উদযাপন করেন? কেন নিষিদ্ধ বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী আলফাও কেন চিনা অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে উদযাপনে মাতে? প্রকৃত ভারতীয়রা কি জানেন যে করদাতাদের অর্থ নিয়েই অসমে বিজেপি চিনা অনুপ্রবেশকারীদের মূর্তি তৈরি করে?”

যদিও বিতর্কের জেরে পরে টুইটগুলি মুছে ফেলেন তিনি। কিন্তু তাতেও থামেনি সমালোচনা। গর্গ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার দাবি জোরদার হয়েছে অসমে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ