স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়কের মৃত্যুর ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মামুদ শেখ গ্রেফতার হল মালদহে। শুক্রবার গোপনসূত্রে অভিযান চালিয়ে পঞ্চানন্দপুর এলাকার গঙ্গার ঘাট থেকে মামুদ শেখকে গ্রেফতার করে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ। গঙ্গানদী পার হয়ে ঝাড়খন্ডে পালাবার পরিকল্পনা নিয়েছিল অভিযুক্ত মামুদ শেখ । কিন্তু তার আগেই মোথাবাড়ি পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায় সে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , হেমতাবাদের বিজেপি দলের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ বর্মনের মৃত্যুর পর থেকেই মোথবাড়ি থানা এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়িতে মামুদ আত্মগোপন করে বসেছিল। এদিন গঙ্গা পেরিয়ে ঝাড়খন্ডে এক আত্মীয়ের বাড়িতে পালানোর ছক ছিল তার। তার আগেই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ধৃত মামুদ শেখের বাড়ি চাঁচল থানা এলাকায়।

কালিয়াচক-‌২ নম্বর ব্লকের বাবলা কমলপুর এলাকায় মামুদের এক আত্মীয় রয়েছে। সেই আত্মীয়ের বাড়িতে গত ১৫ জুলাই থেকে সে আত্মগোপন করে করেছিল।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ বর্মনের ঝুলন্ত দেহ দেখেন এলাকাবাসী। ২ জনের নামে অভিযোগ ছিল। সিআইডি এর আগেই এক অভিযুক্তকে মালদহ থেকে গ্রেফতার করেছে। মূল অভিযুক্ত মামুদ শেখকে খুঁজছিল সিআইডি। কিছুদিন আগেই সিআইডি জানতে পারে মোথাবাড়ি থানা এলাকায় আত্মগোপন করে রয়েছে মামুদ। সে বিষয়ে মোথাবাড়ি থানার পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়।

তারপর থেরে মামুদকে নজরে রাখছিল পুলিশ। এদিন ওই আত্মীয়ের বাড়ি থেকে পঞ্চানন্দপুরের গঙ্গা পেরিয়ে ঝাড়খন্ডে যাওয়ার ছক করেছিল মামুদ। সেই হিসেবে একটি গাড়িতে করে পঞ্চানন্দপুর ঘাটের দিকে যাচ্ছিল সে। রাস্তাতেই তাকে ধরে ফেলে পুলিশ। এক সিআইডি কর্তা আত্রেয়ী সেন জানিয়েছেন, এটি পুলিশের বড় সাফল্য। এর আগে ইংরেজবাজার থানা এলাকার পুলিশ এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

এদিন মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ।’‌ মোথাবাড়ি থানার ওসি বিটুল পাল জানিয়েছেন,‌ ‘‌হেমতাবাদের বিধায়ক মৃত্য কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত মামুদ শেখ বেশ কয়েকদিন থেকেই বাবলা কমলপুর এলাকায় নিজের আত্মীয়র বাড়িতে আত্মগোপন করেছিল।

আজ সে এই এলাকা থেকে গঙ্গা নদী পার হয়ে ঝাড়খন্ড এলাকায় পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। রাস্তাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতকে এদিনই সিআইডি-‌র হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা