স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সকাল থেকে দফায় দফায় জেরার পর ছাড়া হল অর্ণব ঘোষকে। বুধবার সিআইডির স্পেশাল সুপারিন্টেন্ডেন্ট অর্ণব ঘোষকে জেরা করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা।

তবে বৃহস্পতিবার ফের তাঁকে হাজিরা দিতে হবে সিজিও কমপ্লেক্সে। সকাল সাড়ে ১০টায় যেতে বলা হয়েছে তাঁকে। সূত্রের খবর, সিবিআই অফিসাররা তাঁর জবাবে খুশি নন। তাঁরা সারদা কেলেঙ্কারি সম্পর্কে আরও কিছু জানতে চান। তাই আবার তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার সকালে সিবিআই দফতরে হাজির হন অর্ণব ঘোষ৷ সারদা তদন্তের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ছিলেন এই পুলিশ অফিসার। সেইসময় বিধাননগর কমিশনারেটের গোয়েন্দা প্রধান ছিলেন তিনি। সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তে রাজ্য পুলিশের তৈরি বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট)-এর গুরুত্বপূর্ণ কর্তা ছিলেন এই অর্ণব ঘোষ।

এর আগে তিন বার সমন এড়িয়েছেন তিনি। বুধবার সকাল ১০টায় অর্ণব পৌঁছন সিজিও কমপ্লেক্সে। আধ ঘণ্টা পরেই তাঁর জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়।

সারদা সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবই তাঁর কাছ থেকে সিবিআই আধিকারিকরা বেছেন বলে অনুমান করা হচ্ছে। এই তদন্তে রাজীব কুমারের কী ভূমিকা ছিল তাও জানতে চাওয়া হয় আইপিএস অর্ণব ঘোষের থেকে৷

বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ সামনে রেখে, লাল ডায়েরি থেকে শুরু করে সারদাকাণ্ডে তদন্ত পরিচালনায় তাঁর ভূমিকা কী ছিল, তাঁকে তদন্তের ইন্সট্রাকশন কে দিতেন, এই সব যাবতীয় প্রশ্নই অর্ণব ঘোষের জন্য সাজিয়েছিল সিবিআই গোয়েন্দারা৷

মঙ্গলবার সারদায় একাধিক তদন্তকারী আধিকারিককে তলব করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (সিবিআই)৷ বুধবারই তাঁদেরকে সিজিও কমপ্লেক্স অর্থাৎ সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়। এদের মধ্যে আইপিএস অফিসার অর্নব ঘোষের নাম ছিল। অর্ণব ঘোষ তৎকালীন সিটের প্রধান রাজীব কুমারের ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। এছাড়াও তৎকালীন রাজ্য পুলিশের সারদার তদন্তকারী অফিসার দিলীপ হাজরাকেও ডাকা হয়েছে৷