শ্রীনগর: ক্রিসমাসের দিনেও শান্তি নেই। ফের একবার সীমান্তে উত্তাপ ছড়াল পাকিস্তান। কাশ্মীরে গুলিবর্ষণ করেছে পাক সেনা। পাক হানায় মৃত্যু হয়েছে সেনা অফিসার সহ মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। এলওসিতে এই পাক হানার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে।

সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, কোনও প্ররোচনা ছাড়াই বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টা নাগাদ সীমান্তের উরির হাজিপীর এলাকায় গুলি চালাতে শুরু করে পাক বাহিনী। শুধুমাত্র যে গুলি ছোড়া হয় তাই নয়, পাক সেনার তরফে ভারতীয় গ্রাম লক্ষ্য করে শেলিংও করা হয়।

সূত্র আরও জানাচ্ছে, এক সেনা অফিসারের পাশাপাশি মৃত্যু হয়েছে আরও দুজনের। কাশ্মীর পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পাকিস্তানি সেনার গুলিতে উরিতে এক মহিলারও মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি পাক সেনার ফায়ারিং-এ আরও দুই গ্রামবাসী আহত হয়েছে বলে খবর রয়েছে।

আরও পড়ুন- উৎসবের রাতে কলকাতার রাস্তায় গ্রেফতার ১৭২৬ জন

উল্লেখ্য, মঙ্গলবারই সামনে এসেছিল এক বিস্ফোরক রিপোর্ট। পাকিস্তানের ইন্টার-সার্ভিস-ইন্ট্যালিজেন্স (আইএসআই) লস্কর-এ-তৈবা এবং ইসলামিক স্টেটের মধ্যে যোগসূত্র স্থাপন করে আফগানিস্তানের ভারতীয় মিশনের ওপর আত্মঘাতী হামলা ঘটাতে চাইছে বলে দাবি করা হয়েছিল এক গোয়েন্দা রিপোর্টে।

তার আগে রবিবার ফের একবার সীমান্ত লঙ্ঘন করেছিল পাকিস্তান। রবিবার সকাল থেকেই রাজৌরির সীমান্তবর্তী অঞ্চলের নৌসেরা সেক্টরে গোলাবর্ষণ শুরু করে পাকিস্তান। অন্যদিকে মেন্ধার,কৃষ্ণা,ঘাটি এবং পুঞ্চ সেক্টরে সারা রাত ধরে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছিল পাকসেনাবাহিনী। যদিও পাক সেনার হামলার জবাবে ভারতীয় সেনাবাহিনীও পাল্টা গোলা বর্ষণ করে জবাব দেয়।

মাঝে মধ্যেই এই পাক হানার কড়া জবাব দিচ্ছে ভারত। গত পাকিস্তানকে জবাব দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। ধ্বংস করা হয় একাধিক পাক বাঙ্কার। হামলায় দুই পাকিস্তান সেনাও খতম হয়েছে বলে জানা যায়। এই ঘটনার পরেই একের পর এক টুইট করেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পালটা ভারতকে জবাব দেওয়ার বার্তা দেন পাক প্রধানমন্ত্রী।