নয়াদিল্লি: এবার বর্ডারে মোতায়েন সেনাদের হাতে আসতে চলেছে নতুন আর্টিফিশিয়াল ইন্টালিজেন্স ডিভাইস৷ দুর্গম স্থান থেকে উচ্চতর স্থানে অস্বাভাবিক কার্যকলাপ সম্পর্কে সেনাদের আরও সতর্ক করে তুলবে এই যন্ত্রটি৷ সেভাবেই এটি তৈরি করেছে আর্মি ডিজাইন ব্যুরো৷

হেলমেটের সামনে এটি লাগানো থাকবে যা রাতেও সেনাদের সতর্কবার্তা দেবে, এমনকি কোনও ধরণের অস্বাভাবিক কার্যকলাপ ওই ডিভাইস ডিটেক্ট করতে পারলে, সঙ্গে সঙ্গে রিস্ট-ব্যান্ডের মতো দেখতে ডিভাইস ভাইব্রেট(কেঁপে উঠবে) করবে, এমনটাই জানিয়েছেন, নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক৷

পড়ুন: নিখুঁতভাবে টার্গেটে আঘাত করতে T-90 ট্যাংকে বসছে থার্ড জেনারেশন মিসাইল সিস্টেম

ফাইল ছবি

সীমান্তে বিশেষ করে রাতের বেলায় অনেক দুর্গম স্থানেই সেনা-জওয়ানদের কাজে সুবিধা হবে, সেই সঙ্গে তাঁদের আত্মবিশ্বাসও এই যন্ত্রে কর্মদক্ষতায় বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ ২০১৬ সালে আর্মি টেকনোলজির একটি সেমিনারে প্রথম এই ধরণের একটি যন্ত্র তৈরির আলোচনা হয়৷ ২০১৫ সালে আর্মি ডে ফাংশনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অংশগ্রহণের পর থেকে এই ধরমের সেমিনার শুরু হয়৷

পড়ুন: পাকিস্তানের কাছেই অত্যাধুনিক মিসাইল সিস্টেম মোতায়েন করছে ভারত

ফাইল ছবি

প্রসঙ্গত, চিনা সেনাদের সঙ্গে ডিল করতেও যথেষ্ট সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় জওয়ানদের, কারণ ম্যান্ডারিন যথেষ্ট জটিল একটি ভাষা৷ খুব কম সংখ্যক মানুষই এটি অনুবাদ করতে পারে৷ এই সমস্যা সমাধানের দিকেও জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে৷ চিনা সেনাদের সঙ্গে কথাবার্তা চলাকালীন লাইভ ট্রান্সলেটারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে যাতে ম্যান্ডারিনের অনুবাদ সহজেই হয়ে যেতে পারে৷ বর্তমানে এই ট্রান্সলেশন ডিভাইস ইন্টারনেটে পাওয়া যায়, তবে সীমান্ত এলাকায় ইন্টারনেট একটি ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে, তাই বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে৷