শ্রীনগর: বুধবার ভোর থেকেই পুলওয়ামায় ফের শুরু হয়ে সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াই৷ পুলওয়ামার ত্রাল এলাকার নাগবালের জঙ্গলে আধা সামরিক সেনা সিআরপিএফ এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের স্পেশাল অপরেশন টিমের সদস্যরা অভিযান চালাচ্ছে৷

ওই জঙ্গলেই তিন জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে, সূত্র মারফত এমন একটি খবর পেয়ে অভিযান শুরু করে সেনা৷ জঙ্গলের ভিতর থেকে সেনাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় জঙ্গিরা৷ ব্যাস, তারপরই শুরু হয়ে যায় যুদ্ধ৷ জঙ্গল লাগোয়া এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী এক জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, লোকসভা নির্বাচনে গান্ধিনগর থেকে জিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হয়ে এই প্রথম জম্মু ও কাশ্মীর সফরে যাওয়ার পথে অমিত শাহ৷ শ্রীনগরে বৈঠক করবেন৷ রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের সঙ্গে দেখা করে তিনি উপত্যকার নিরাপত্তা নিয়ে বৈঠকও করবেন৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের আগেই জঙ্গি-সেনার লড়াই উপত্যকাকে উত্তপ্ত করে রেখেছে৷

সেনার কাছে পাক্কা খবর ছিল, পুলওয়ামা এবং সোপিয়ানের বিভিন্ন জায়গায় অমিত শাহর সফর চলাকালীন জঙ্গী নাশকতার ঘটনা ঘটতে পারে৷ এরমধ্যেই মঙ্গলবার পুলওয়ামা থেকে সেনা-পুলিশ জইশ জঙ্গি মুন্না লহরিকে ধরে ফেলেছে। দাবি করা হয়েছে, পুলওয়ামায় আইইডি বিস্ফোরণ কাণ্ডে মুন্না ছিল অন্যতম মাথা। আত্মঘাতি হামলা করেছিল কাশ্মীরী যুবক আদিল আহমেদ দার৷ কিন্তু, তাঁকে পিছন থেকে মদত দিয়েছিল মুন্না৷

সম্প্রতি অনন্তনাগে এনকাউন্টারে খতম করা হয় জইশ কম্যান্ডার সাজ্জাদ ভাটকে। তদন্তকারী সংস্থার দাবি, সাজ্জাদের গাড়িতেই বিস্ফোরক বোঝাই করেই পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কলভয়ে ০হামলা চালিয়েছিল আত্মঘাতী জঙ্গি আদিল।

সেনার লাগাতার এনকাউন্টার চলছে পুলওয়ামা এবং সোপিয়ানে। রাজ্য জুড়ে সতর্কতা এবং নিরাপত্তা বেষ্ঠনীতে মুড়ে ফেলা হয়েছে৷ জঙ্গিদের কাছে এই বার্তা পৌছে দেওয়া হচ্ছে যে, দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম অমিত শাহ৷ কোনও ‘মিস অ্যাডভেনচার’-এর পরিণতি মারাত্মক হবে৷