বারাকপুর: দীনেশ ত্রিবেদীকে হারিয়ে বারাকপুরে জয়ী অর্জুন সিং। সকাল থেকেই ছিল টানটান উত্তেজনা। বারাকপুর কেন্দ্র ঘিরে উৎসাহ ছিল বরাবরই বেশি।

বিকেলেই ছবিটা পরিস্কার হয়ে যায়। প্রথম থেকে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছিল এই কেন্দ্রে। একদিকে একসময়ের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দীনেশ ত্রিবেদী। অন্যদিকে, সদ্য দলবদল করা বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। বার কয়েক দীনেশ ত্রিবেদী এগিয়ে গেলেও ট্রেন্ড ছিল অর্জুনের দিকেই।

কয়েক হাজার ভোটে জিতে যান অর্জুন সিং। দীনেশ ত্রিবেদী দীর্ঘদিনের নেতা হলেও বারাকপুর ছিল অর্জুন সিং-এর শক্ত ঘাঁটি। আগেই অর্জুন সিং সতর্ক করে বলেছিলেন যে, এলাকায় সংগঠনটা তৃণমূলের ছিল না, ছিল অর্জুন সিংয়ের।

এরপর ভোটের দিন দেখা গিয়েছে উত্তেজনার পারদ চড়েছে। মারামারিতে ঠোঁট ফেটে রক্ত বেরিয়েছে অর্জুন সিংয়ের। তারপরও জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন অর্জুন। উপ নির্বাচনে তাঁর ছেলে পবন সিং-কে দাঁড় করানো হয়েছিল মদন মিত্রের বিরুদ্ধে। সেখানেও জয়ী হয়েছেন পবন।

যদিও ভোটের পরও দেখা গিয়েছে অশান্ত বারাকপুর। আগুন জ্বলেছে ভাটপাড়ায়। অর্জুন সিং-কে গ্রেফতার করা হতে পারে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। এমনকি অর্জুনকে এনকাউন্টারে হত্যা করা হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন কৈলাশ বিজয়বর্গী।

বুধবার সুপ্রিম কোর্টে মামলার শুনানিতে অর্জুন সিং-কে সুরক্ষা দেওয়ার আর্জিতে সম্মতি দেয় বিচারপতি অরুণ মিশ্র ও বিচারপতি এমআর শাহের বেঞ্চ।

বিজেপি নেতা অর্জুন সিংয়ের আগাম জামিনের আবেদন গ্রহণ করে সুপ্রিম কোর্ট৷ রাজ্য সরকার তাঁকে ফাঁসানোর চক্রান্ত করছে, মিথ্যা মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করা হতে পারে, এই অভিযোগ তুলেই সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বারাকপুর লোকসভার প্রার্থী৷