স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ঝাঁটা, বেলচা হাতে পথে নামলেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। সোমবার সকাল সকাল তিনি দলীয় কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ঝাঁটা, বেলচা হাতে ভাটপাড়া শহর পরিষ্কার করতে নেমে পড়েন।

গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে বেতন না পেয়ে লাগাতার কর্মবিরতি পালন করছেন ভাটপাড়া পুরসভার প্রায় ৩ হাজার শ্রমিক। যার ফলে গোটা ভাটপাড়া শহর জুড়ে জমে গিয়েছে আবর্জনা। সেই আবর্জনা পরিষ্কার করার কাজে নিজেই হাত লাগালেন বিজেপি সাংসদ। রাস্তা পরিষ্কার করলেন ঝাঁটা হাতে, বেলচা দিয়ে তুললেন নর্দমার আবর্জনা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বচ্ছ ভারত অভিযানের কর্মসূচি হিসেবে সোমবার সকালে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এভাবেই ভাটপাড়া শহরের আবর্জনা পরিষ্কার করলেন অর্জুন সিং।

বিজেপি পরিচালিত ভাটপাড়া পুরসভায় গত পাঁচ মাস ধরে সাফাই কর্মীরা বেতন পাচ্ছেন না। বেতন না পেয়ে তারা আন্দোলন শুরু করেছে। সাফাই কর্মীদের বক্তব্য, বিজেপি পুরবোর্ডের ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ভাটপাড়া পুরসভার কর্মীদের বেতন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তৃণমূল আমলে এরকম সমস্যা তাদের ছিল না। বেতন না পেলে কি করে কাজ করবে তারা।

এদিকে এই প্রসঙ্গে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, “তৃণমূল সরকার ভাটপাড়া পুরসভার সঙ্গে বঞ্চনা করছে। পুরসভার নায্য অধিকার আটকে দেওয়া হয়েছে। যার ফলে, কর্মীদের বেতন আটকে আছে। তবে ভাটপাড়া পুরসভা কর্তৃপক্ষ স্থানীয় স্তরে চেষ্টা করছে পুর কর্মীদের বকেয়া মিটিয়ে দেওয়ার। তাঁর কথায়, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজী থাকলে অসম্ভব বলে কিছু নেই, সব সম্ভব। এখনকার অনেক কর্মীদের জোর করে পুলিশের ভয় দেখিয়ে কাজে ফিরতে দেওয়া হচ্ছে না। ভাটপাড়া পুরসভা কর্মীদের জোর করে আটকে রাখা হয়েছে । তাই বাধ্য হয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে আমাকে পথে নামতেই হল।”

দূর্গা পূজার আর একমাস ও বাকি নেই। তার আগে ৫ মাসের বেতন না পেয়ে সমস্যায় পড়েছেন পুরসভার অস্থায়ী সাফাই কর্মীরা। সাংসদ অর্জুন সিং আশ্বাস দিয়েছেন, শ্রমিকদের বেতন মিটিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু কবে তারা বেতন পাবেন সেদিকে তাকিয়ে আছে পুরসভার সাধারন সব শ্রমিকরা।