স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: উঠতে বসতে ‘জয় শ্রীরাম’, রাজ্যে শাসকদলকে বারবারই অস্বস্তিতে ফেলছে এই ধ্বনি৷ আর, জয় শ্রীরাম লেখা থাকবে এমন পোস্ট কার্ড বিজেপি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠানো হবে বলে শনিবারই বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়৷ মোট ‘জয় শ্রীরাম’ লেখা ১০ লক্ষ পোস্ট কার্ড মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠানো হবে, পিটিআই-এর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে এই বিষয়েই জানান অর্জুন সিং৷ তিনি বলেন, তাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে এই কার্ডগুলি পাঠানো হবে৷

শনিবারের পর সোমবারই দেখা গেল, যেমন সিদ্ধান্ত তেমন কাজ! বসে বসে একটার পর একটা এই পোস্ট কার্ডে নিজে লিখছেন অর্জুন সিং৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে জয় শ্রী রাম লেখা পোস্ট কার্ড পাঠানোর কর্মসূচি গ্রহণ করলেন তিনি৷

সোমবার অর্জুন সিংয়ের অফিসে গিয়ে দেখা যায় তিনি নিজেই পোস্ট কার্ড লিখছেন । তাঁর বক্তব্য, ‘দেখা যাক জয় শ্রীরাম বলার জন্য মুখ্যমন্ত্রী কত মানুষকে গ্রেফতার করতে পারে।’ এদিকে জয় শ্রীরামের পাল্টা হিসেবে অর্জুন সিং-এর হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে ‘জয়হিন্দ’, ‘জয় বাংলা’ লিখে পাঠানোর আবেদন জানানো হয়েছে তৃণমূল কর্মীদের একাংশের তরফে। যদিও এখনও পর্যন্ত অর্জুন সিং হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে তেমন কোনও মেসেজ পাননি বলে জানিয়েছেন। অর্জুন সিং এদিন বলেন, ‘যখন তৃণমূল নেত্রী চতুর্দিকে তৃণমূল ছাড়া কিছু দেখেন না তখন জয় হিন্দ, জয় বাংলা বলতে বাধ্য হয়েছেন তারই দৌলতে।’ এতে তিনি অত্যন্ত খুশি। অর্জুন সিংযের মতে, মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক লড়াইটা তার সঙ্গেই লড়ছেন, তাতে তিনি খুবই খুশি ।

এর আগে, কনভয়ের সামনে জয় শ্রী রাম ধ্বনি শুনে একাধিকবার ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেউ কেউ বলছেন, সেই ক্ষোভই নাকি কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের জন্য। এবার পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি আসন বাড়ার পর মমতার উদ্দেশ্যে ‘জয় শ্রী রাম’ লেখা কুর্তি উপহারও পাঠিয়েছেন বিজেপি নেতা।

লোকসভা ভোটের শেষ দফার আগে এই রাজ্যের পুলিশের হাতে আটক হয়েছিলেন দিল্লির বিজেপি নেতা তেজিন্দর সিং বাগ্গা। সেই নেতাই এরাজ্যে বিজেপির অভাবনীয় সাফল্যের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘উপহার’ পাঠান। ট্যুইটারে লিখে বগ্গা জানিয়েছিলেন সেই উপহার দেওয়ার কথা। লিখেছেন, ‘ওনাকে জয় শ্রী রাম লেখা মহিলাদের একটা কুর্তা পাঠাচ্ছি। অনুগ্রহ করে কুর্তাটি পরে ট্যুইট করবেন।’

ভোটের আগে এক সাক্ষাৎকারে মোদী বলেছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে প্রত্যেক বছর কুর্তা উপহার দেন। মমতা নিজেও উপহার পাঠানোর কথা স্বীকার করে নিয়েছিলেন। ওই বিজেপি নেতা তাই লিখেছেন, “শুনেছি মমতা দিদি মোদীজিকে কুর্তা পাঠান। আমাদেরও কর্তব্য ওনাকে রিটার্ন গিফট দেওয়া।”