দেবযানী সরকার, কলকাতা: মুকুল রায়কে কড়া আক্রমণ করার পুরস্কার পেলেন ভাটপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিং৷ সূত্রের খবর, আসন্ন নোয়াপাড়া বিধানসভা উপনির্বাচনে তাঁকেই প্রার্থী বাছাইয়ের দায়িত্ব দিয়েছে দল৷ এছাড়াও রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী পেয়েছেন এই ‘বাহুবলী’ নেতা৷

১৩ জুলাই রানী রাসমণির সভায় প্রাক্তন সহকর্মী মুকুল রায়কে ‘গদ্দার’ বলে তীব্র আক্রমণ করেন অর্জুন সিং৷ মুকুলের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে ভাটপাড়ার এই ‘ডন’ বলেন, আপনি আগে এলাকার কাউন্সিলর ভোট থেকে জিতে দেখান৷ আপনার বিরুদ্ধে একটা সামান্য ছেলেকে দাঁড় করিয়ে আমি আপনাকে হারিয়ে দেব৷ এমনকি মুকুল রায়কে বিজেপির ‘ঘরের নতুন বউ’ বলেও কটাক্ষ করেন তিনি৷ তারপরই শীর্ষ নেতৃ্ত্বের ভরসার পাত্র হয়ে ওঠেন তিনি৷

’১৮-এর জানুয়ারিতে নোয়াপাড়া উপনির্বাচন হওয়ার কথা৷ চলতি মাসের শেষের দিকে দিণক্ষণ ঘোষণা করতে পারে নির্বাচন কমিশন৷ তৃণমূল সূত্রের খবর, অর্জুন সিংকে প্রার্থী বাছাইয়ের দায়িত্ব দেওয়া নিয়ে তৃণমূলের অন্দরে বিরোধ চরমে উঠেছে৷ দলের একাংশ চাইছে প্রাক্তন মন্ত্রী উপেন বিশ্বাসকে নোয়াপাড়া কেন্দ্রে প্রার্থী করা হোক৷

কিছুদিন আগে নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে মুকুল রায় দলবিরোধী কাজ করছে বলে অভিযোগ জানিয়েছিলেন এই উপেন বিশ্বাস৷ মুকুলের মতো শীর্ষস্থানীয় নেতার বিরুদ্ধে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয়পাত্র উপেনের এই নালিশে আলোড়ন উঠেছিল দলের অন্দরে। তাই মুকুল রায়ের এলাকায় প্রাক্তণ গোয়েন্দা কর্তাকে অনেকেই চাইছেন প্রার্থী করতে৷ সূত্রের দাবি, অর্জুন সিং চাইছেন তাঁর ভগ্নিপতি সুনীল সিংকে প্রার্থী করতে৷

যদিও একথা অস্বীকার করেন ভাটপাড়ার এই বিধায়ক৷ তিনি বলেন, আমাকে প্রার্থী বাছাইয়ের কোনও দায়িত্ব দেওয়া হয়নি৷ আর আমি নিজেও কাউকে প্রার্থী করতে চাইছি না৷ কিন্তু হঠাৎ একজন বিধায়ককে রাজ্য সরকার বিশেষ নিরাপত্তা দিতে গেল কেন? এটা কি মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে সুর চরানোর আর একটা পুরস্কার? এর জবাবে অর্জুন সিং বলেন ‘যেহেতু দলের পক্ষ থেকে আমি উত্তরপ্রদেশ, বিহারের দায়িত্বে আছি, মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে কথা বলার আগেই আমাকে এই জেড ক্যাটাগেরি নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে’৷

এর আগে শোনা গিয়েছিল নোয়াপাড়া উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন মদন মিত্র৷ তবে আপাতত তাঁকে কামারহাটির দায়িত্বে রাখতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মদন মিত্র নিজেও চান কামারহাটির মাটি কামড়ে পরে থাকতে৷

এদিকে, অর্জুন সিংকে দল বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ায় রাজনৈতিক মহলে বিভিন্ন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ এলাকায় মুকুলের ছায়া পুরোপুরি ধ্বংস করতেই কি অর্জুনকে বিশেষ গুরুত্ব?-এই প্রশ্ন যেমন উঠছে, তেমনই অনেকেই ভাবছেন মুকুল পুত্র শুভ্রাংশুর উপর নজর রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।