স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ফের খবরে ভাটপাড়া। বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গাড়িতে হামলা চালানোর ঘটনায় উত্তেজনা ছড়াল বারাকপুরে। শনিবার রাতে কাঁকিনাড়ার দিক থেকে গাড়ি করে আর্য্য সমাজ রোড দিকে আসছিলেন বিজেপি সাংসদ। সেই সময় আচমকা তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়তে শুরু করে দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় শাসক দলের বিরুদ্ধেই তোপ দেগেছেন অর্জুন সিং। যদিও গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে তদন্তে নেমেছে ভাটপাড়া থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার রাতে অর্জুন সিং যখন কাঁকিনাড়ার দিক থেকে গাড়ি করে আর্য্য সমাজ রোডে আসছিল। সেই সময় তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়ে গাড়ির সামনের কাঁচ ভেঙে দেয় কিছু দুষ্কৃতী। এই ঘটনায় রাস্তার মধ্যে উত্তেজনা ছড়ালে জখম হন স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা। অভিযোগ উঠে, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গাড়িতে ইঁট মেরে গাড়ির সামনের কাঁচ ভেঙে দিয়েছে।
যদিও পরে এই বিষয়ে ভাটপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন অর্জুন সিং।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনার পর আর্য্য সমাজ রোড এলাকায় উত্তেজনা ছড়ালে ওই এলাকায় হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। সেই সময় রাস্তায় পড়ে জখম হন গণেশ সিং নামের স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা। সাংসদ অর্জুন সিং’য়ের বক্তব্য, জখম ওই তৃণমূল নেতাকে নিজের গাড়িতে করেই ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল পৌঁছে দেন তিনি।

যদিও এই ঘটনার পরিপ্রক্ষিতে ভাটপাড়ার তৃণমূল নেতা সোমনাথ শ্যাম বলেন, “এই এলাকার স্থানীয় তৃণমূল নেতা গণেশ সিংকে মেরেছে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। ওর পা ভেঙে দিয়েছে অর্জুন সিংয়ের নিরাপত্তারক্ষীরা। আমরা বলেছি পুলিশকে ঘটনার তদন্ত করতে। তৃণমূল কর্মীরা আইন নিজের হাতে নেবে না।”

এদিকে রাতেই তৃণমূলের ওই জখম নেতাকে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল থেকে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।