স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: নৈহাটিতে খুনে গ্রেফতার করা হল অভিযুক্তকে৷ ধৃত ধনঞ্জয় সিং তৃণমূলেরই কর্মী৷ একথা মেনে নিলেন তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিং৷

মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এসে মৃতের ছেলেকে চাকরির আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি৷ বৃহস্পতিবার ভোররাতে ধনঞ্জয় সিংকে গ্রেফতার করে নৈহাটি থানার পুলিশ৷

আরও পড়ুন: স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকার জেরে অবসাদে আত্মঘাতী চিকিৎসক

উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটিতে গত ১৩ মার্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী শুভম সিংয়ের বাবা বিজয় সিংকে তার বাড়ির সামনেই হাজিনগরে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ ওঠে৷ সেই ঘটনায় গ্রেফতার হল অভিযোগ৷ ধৃতের নাম ধনঞ্জয় সিং৷ বৃহস্পতিবার ভোররাতে নৈহাটি থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে৷ অভিযোগ গত ১৩ মার্চ বিজয়বাবু যখন বাইকে করে তার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছেলেকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন, সেই সময় তাঁকে অতর্কিতে পিছন থেকে লোহার রড নিয়ে হামলা করেছিল প্রতিবেশী ধনঞ্জয় সিং৷

আরও পড়ুন: উচ্ছেদের প্রতিবাদে হকারদের আন্দোলন

ধনঞ্জয়ের সঙ্গে বিজয়ের সম্পত্তিগত বিবাদ ছিল দীর্ঘদিনের৷ সম্প্রতি একটি গাছ কাটা নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে শত্রুতা তৈরি হয়েছিল বলে খবর৷ তার জেরেই ধনঞ্জয়, প্রতিবেশী বিজয়কে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে খুন করে বলে অভিযোগ৷ সেই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ছিল শুভম৷ ওই খুনের দৃশ্য ধরা পড়েছিল সিসিটিভি ক্যামেরাতেও৷ বিজয় সিং খুনে মূল অভিযুক্ত খুনি ধনঞ্জয় গ্রেফতার হওয়ায় মাত্র তিনদিনের মধ্যেই এই খুনের কিনারা হয়ে গেল৷ নৈহাটি থানার পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃত ধনঞ্জয়কে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করে খুনে ব্যবহৃত লোহার রডটি উদ্ধার করা হবে৷

এদিকে বিজয় সিং খুনের ঘটনায় পুলিশের কাছে অভিযুক্ত ধনঞ্জয়ের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বিজয়ের পরিবারের সদস্যরা৷ অন্যদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে মৃত বিজয় সিংয়ের নৈহাটির বাড়িতে যান ভাটপাড়ার তৃনমূল বিধায়ক অর্জুন সিং৷

আরও পড়ুন: মাছ চাষ করে সেরার শিরোপা হলদিয়ার আরতির

তিনি বলেন, “যেভাবে বিজয় সিংকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে, সেটা সিসিটিভিতে সবাই দেখেছে৷ বিজয় সিংয়ের পরিবার আমার আত্মীয় হয়, সেই কারণেই আমি ওদের বাড়িতে এলাম৷ যে খুন করেছে সে বারাকপুর মহকুমার তৃনমূল শ্রমিক সংঠনের পদে আছেন তার বাবা দিলীপ সিংও পদে আছেন বলে আমি শুনেছি৷ ওদের ওই পদ থেকে অপসারণ করা হবে৷ তৃণমূল শ্রমিক সংঠনের নতুন কমিটিতে ওরা থাকবে না৷ আমাদের দলের কেউ অপরাধ করলে রেয়াত করা হবে না৷ অপরাধ করলে আইন মোতাবেক শাস্তি পেতেই হবে৷ বিজয় সিংয়ের পরিবারের একজন সদস্যকে চাকরি দেওয়ার কোনও ব্যবস্থা করা যায় কি না সেটা দেখব৷” নৈহাটি থানার পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত ধনঞ্জয়কে নিয়ে বিজয় সিং খুনের ঘটনার পুনর্নির্মাণ করা হবে৷

আরও পড়ুন: বাঘের আতঙ্কে জ্বরে কাবু মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী