ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাংসদ-সাংবাদিক কুণাল ঘোষের বৈঠককে তীব্র কটাক্ষ করলেন নব্য বিজেপি নেতা তথা বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং৷তিনি বলেন, দিদিমণির এমন বেহাল অবস্থা হয়ে গিয়েছে যে যারা জেল খেটে বেরোচ্ছে তাদের বাড়িতে ডেকে বৈঠক করছেন তিনি৷

লোকসভা নির্বাচনে জোর ধাক্কা খাওয়ার পরই পুরনো নেতা-কর্মীদের ফিরিয়ে আনার বার্তা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়। এই পরিস্থিতিতে শনিবার অপ্রত্যাশিতভাবে কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান কুণাল ঘোষ৷ প্রায় চারঘন্টা মুখোমুখি বৈঠক হয়ে বলে সূত্রের খবর।

তবে বৈঠকের বিষয় কী ছিল, তা নিয়ে মুখ খোলেননি কোনও পক্ষই। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা হওয়ার আগে কুণাল ঘোষ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও একপ্রস্থ বৈঠক সারেন। তারপর তিনি যান হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আবার কুণাল ঘোষ যান অভিষেকের সঙ্গে দেখা করতে। সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আমার সম্পর্ক আজকের নয়। আমি তৃণমূলের পুরনো সৈনিক। দলের কঠিন সময়ে ছিলাম। আজও আছি। ভবিষ্যতেও থাকব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। দলের পুরনো কর্মী হিসাবেই গিয়েছিলাম।’

অর্জুনের কটাক্ষ, যে সারদা মামলায় জেল খেটেছে তাকে বাড়িতে ডেকে মিটিং করছেন দিদিমণি৷ তিনি আর সততার প্রতিক থাকতে পারলেন না। মদন মিত্রর উদাহরণ টেনে বারাকপুরের সাংসদ বলেন, জেল খেটে আসা লোকেদের তো দিদি এখন টিকিটও দিচ্ছেন।