নয়াদিল্লিঃ বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে করোনা যে ভয়াল রূপে আক্রমণ হানিয়েছে তা আমরা নিত্যদিনই দেখতে পাচ্ছি। রোজই জানতে পারছি ইন্ডাস্টির কেউ না কেউ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। গতকাল অর্জুন রামপাল, নীল নিতিন মুকেশ ও সামিরা রেড্ডী সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন তাদের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বি টাউনের ক্যাটরিনা কাইফ, আলিয়া ভাট, রনবীর কাপুর, ভুমি পেডনেকর, ভিকি কৌশল, আমির খান, অক্ষয় কুমার সহ একাধিক অভিনেতা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কেউ সুস্থ হয়ে কাজে ফিরেছেন আবার কেউ এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মুম্বাইয়ে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের লিক্ষ্যে মহারাষ্ট্র সরকার জারি করেছে ১৪৪ ধারা। এছাড়াও বিভিন্ন রাজ্য করোনার বিস্তার রোধ করার জন্যে প্রয়োজনীয় নিষেধাজ্ঞা ও প্রতিবন্ধকতা প্রয়োগ করছে।

এদিন অর্জুন টুইট করে নিজের কোভিড পজিটিভ হওয়ার খবর জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমি কোভিড পজিটিভ হয়েছি। যদিও আমার কোন সিমটম নেই তাও আমি নিজেকে আইসোলেট রেখেছি। সব নিয়মবিধি মেনে প্রয়োজনীয় ওষুধ গ্রহণ করছি’। বিগত ১০ দিনে যারা তার সংস্পর্শে গেছেন তাদের কোভিড টেস্ট করানোর জন্যে অনুরোধ করেছেন অভিনেতা। তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘এই সময়টা আমাদের সকলের জন্যেই খুব ভয়ংকর। আমরা যদি কিছু সময় একটু সচেতন ও বুদ্ধিমান হয়ে চলি তাহলে দীর্ঘমেয়াদি ফল পাবো। আমরা একসঙ্গে পারব করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে।’

নীল নিতিন টুইট করে লিখেছেন, ‘সমস্ত সতর্কতা বিধি মেনে বাড়িতে থাকা সত্ত্বেও আমি এবং আমার পরিবার করোনা আক্রান্ত হয়েছি। এখন আমরা হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছি। চিকিৎসকের পরামর্শ মত ওষুধ এবং প্রয়োজনীয় বিধি পালন করছি। আপনাদের সকলের ভালবাসা এবং প্রার্থনার জন্যে ধন্যবাদ। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।’

এদিন সামিরা রেড্ডিও জানিয়েছেন তার কোভিড পজিটিভ হওয়ার কথা। শুক্রবার তার কোভিড ধরা পড়ে। শনিবার সেই খবর তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান। ইনস্টাগ্রাম ষ্টোরিতে তিনি লিখেছেন, ‘আমি করোনা আক্রান্ত হয়েছি। হোম কোয়ারেন্টিনে থেকে সকল সাবধান বিধি পালন করছি।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘ভগবানের আশীর্বাদে আমার শাশুড়ি নিরাপদ আছে এবং আমাদের থেকে আলাদা আছেন।’ কাজের জগতের ক্ষেত্রে সামিরা মা হওয়ার পর অনেকদিন সিলভার স্ক্রিন থেকে নিজেকে দূরে রাখলেও দর্শকদের থেকে তিনি দূরে জাননি। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ফ্যানেদের সঙ্গে জুড়ে থেকেছেন। অভিনেত্রীকে ইনস্টাগ্রামে নিজের ছেলে এবং শাশুড়ির সঙ্গে হামেশাই ভিডিও পোষ্ট করতে দেখা যায়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.