সোয়েতা ভট্টাচার্য,কলকাতা : শহর থেকে এক জেএমবি সংগঠনের জঙ্গিকে গ্রেফতার করল এসটিএফ। তাকে জেরা করে চাঞ্চল্যখর তথ্য উঠে এল এসটিএফ কর্তাদের হাতে। তদন্তকারিরা জানতে পেরেছেন জেএমবির প্রথম সারির নেতা কৌসরকে জেল থেকে পালাতে সাহায্য করার ব্রু প্রিন্ট তৈরি করতে আরিফ শহরে এসেছিল।

তারা পরিকল্পনা করেছিল জেএমবির সক্রিয় সদস্য ধৃত কৌসরকে জেল থেকে আদালতে তোলার সময় নিয়ে পালাবে। তার জন্য সব রকম ব্যবস্থা করছিল এই আরিফ। এই মিশন সফল করার উদ্দেশ্য নিয়েই সে এই শহরে এসেছিল বলে দাবি এসটিএফের। এই কাজের জন্য বেশ কিছু নথিপত্র উদ্ধার হয়েছে তার কাছ থেকে।

আরও পড়ুন : পুলওয়ামার ঘটনায় জঙ্গিদের ‘স্বাধীনতা সংগ্রামী’র তকমা পাক সংবাদ মাধ্যমের

শনিবার সকালে গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বাবুঘাট এলাকা থেকে আরিফুল ইসলাম ওরফে আরিফকে গ্রেফতার করা হয়। আরিফ বৌদ্ধ গয়ার বিস্ফোরণের ঘটনার সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিল বলে এসটিএফ কর্তাদের দাবি।

অসমের বাসিন্দা আরিফ জেএমবিতে যুক্ত হওয়ার আগে ট্রাকের খালাশি হিসেবে কাজ করত। তার সঙ্গে জেএমবির সক্রিয় সদস্য কৌসর এবং আব্দুল মাজিতের দেখা হয়। তারাই তাকে জেএমবির সঙ্গে যুক্ত করায় বলে জেরায় এসটিএফ কর্তাদের জানায় আরিফ।

২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে আরিফ কৌসর, আদিল, ছোটা করিম এবং উমরের সঙ্গে বৌদ্ধ গয়ায় রেকি করতে যায়। তার পরে সে বিস্ফোরণ ঘটাতে সক্রিয় ভুমিকা পালন করে। বৌদ্ধ গয়ার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটানোর পর আরিফ ব্যাঙ্গালোরে গা ঢাকা দেয়। সেখানে সে একাধিক ডাকাতি সঙ্গে যুক্ত থাকে।

আরও পড়ুন : জঙ্গি হানায় পাকিস্তানে রিলায়েন্সের ব্যবসার কিছু যায় আসে না

কলকাতায় এসে শহরে রেকি করতে চেয়েছিল সে। কৌসরকে জেল থেকে পালানোয় সাহায্যের পাশাপাশি শহরটি তে রেকি করার পরিকল্পনা ছির আরিফের। তবে কেন এই রেকি করতে চেয়েছিল,তবে কি শহরে বড়শড় কোনও নাশকতা ঘটানোর ছক কষছে জঙ্গিরা তা খতিয়ে দেখছেন এসটিএফ কর্তারা।