স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্যপালের সঙ্গে মমতার প্রশাসনের সংঘাত এবার সংসদেও গড়াচ্ছে৷ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে শীতকালীন অধিবেশন৷ সেই অধিবেশনে জগদীপ ধনখড়ের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে চলেছেন তৃণমূলের সাংসদরা। শনিবার অধ্যক্ষ ওম বিড়লার কাছে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে নালিশ জানিয়ে এসেছেন তৃণমূলের সংসদীয় দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলের অভিযোগ, রাজ্যপাল সমান্তরাল প্রশাসন চালাচ্ছেন। রাজ্য সরকারকে না জানিয়ে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছেন জগদীপ ধনখড়ক। সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রত্যেক বিরোধী দলের কাছেই তাঁরা আর্জি জানিয়েছেন, যাতে তারা এ ব্যাপারে তৃণমূলকে সমর্থন করেন।

অধ্যক্ষর সঙ্গে বৈঠক শেষে বাইরে বেরিয়ে সুদীপ বলেছেন, ‘রাজ্যপালের বিষয়টি আমরা সর্বদলীয় বৈঠকে জানিয়েছি। তিনি যেভাবে রাজ্যে সমান্তরাল প্রশাসন চালাচ্ছেন, তা কোনওমতেই কাম্য নয়। সংসদে এর বিরোধিতায় সোচ্চার হবে তৃণমূল।’ রাজ্যসভার তৃণমূলের সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনের অভিযোগ, সাংবিধানিক এক্তিয়ার থেকে বেরিয়ে কাজ করছেন তিনি। বিজেপি শাসিত অন্যান্য রাজ্যের রাজ্যপালও কী এমন আচরণ করেন, প্রশ্ন তোলা হবে সংসদে।

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের দায়িত্বভার গ্রহণের পর থেকেই জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্য সরকারের সংঘাত লেগেই রয়েছে। তাতে তীব্র প্রতিক্রিয়া-পালটা প্রতিক্রিয়াও দেওয়া হচ্ছে। এমনকী সম্প্রতি খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে বিজেপির লোক বলে তীব্র কটাক্ষ করেছেন। যদিও রাজ্যপালের এসব বিষয়ে ‘ডোন্ট কেয়ার’ মনোভাব।

মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষের জবাব দিতে গিয়ে তিনি বলেছেন, ক্রিকেটের সব বল খেলতে নেই। অর্থাত্ সব প্রশ্নের উত্তর দিতে চান নাতিনি। তবে, হেলিকপ্টার, রাজ্য সড়ক, কিংবা সিঙ্গুর নিয়ে প্রকাশ্যে রাজ্যপাল মন্তব্য করায় রাজ্য রাজনীতি চরম ওঠে। রাজ্যপাল নিজেই রাজনীতির রং গায়ে লাগাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তৃণমূলের চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। এবার এই ইস্যুটিকে সংসদে টেনে আনতে চেয়ে রাজ্যের শাসক দল গোটা বিতর্কে অন্য মাত্রা দিতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তবে আগাগোড়াই ধনখড়ের পাশে দাঁড়িয়েছে বঙ্গ বিজেপি৷

তবে, শুধু রাজ্যপাল ইস্যু নয়, এনআরিস, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করে সরব হবে তৃণমূল। এ কথা জানান সাংসদ ডেরেক। এছাড়া, দেশের ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব, মূল্যবৃদ্ধির মতো একাধিক ইস্যুতেও সর্বদলীয় বৈঠকে নিজেদের অবস্থান এদিন স্পষ্ট করেছে বাংলার শাসক দল। এইসব এজেন্ডা নিয়েও সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে বিজেপি বিরোধিতায় সোচ্চার হবে তৃণমূল।