সোয়েতা ভট্টাচার্য, কলকাতা- অর্চনা ও বলরাম জোড়া রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করলেও এখনও এই ঘটনার কিনারা করতে পারেনি কলকাতা পুলিশ। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় আশিষ যাদব নামে এক ব্যাক্তিকে ঝাড়খন্ড থেকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আশিষের পাশাপাশি তদন্তকারিরা জয়দের ও হরিহরের নামও পেয়েছে। তবে এদের ছাড়া আরও কেউ এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে সেই তথ্যও পুলিশ কর্তারা উড়িয়ে দিচ্ছেন না।

হোটেল অ্যাটলান্টিকাতেই গোটা ঘটনাটি ঘটে। আশিষকেজেরার পরে প্রাথমিক ভাবে তদন্তকারিদের মনে হয়েছিল খুন ও খুনের প্রমান লোপাট করাটাই মূল উদ্দেশ্য ছিল আততায়ীর। তবে এখন পুলিস কর্তারা পরিকল্পনা মাফিক খুনের তথ্যও উড়িয়ে দিচ্ছেন না। হোটেলের সিসিটিভিকে হাতিয়ার করে তদন্ত এগিয়ে নায়ে যাওয়া যাবে বলে মনে করেছিলেন পুলিশ কর্তারা। তবে সেই সিসিটিভি ফুটেজ উধাও জানতেই আরেকবার তদন্তে হোঁচট খান গোয়েন্দারা।\

ফুটেজ লোপাট হয়েছে নাকি পরিকল্পনা করেই সিসিটিভি আগে থেকেই বিকল করে রাখা হয়েছিল সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অর্চনার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দেখে গোয়েন্দারা নিশ্চিত শ্বাসরোধ করেই খুন করা হয়েছে তাকে। তবে বলরামের মৃত্যুর কারনকি তা এখন স্পষ্ট নয়।

কারন বলরামের পচাগলা দেহের ময়নাতদন্ত করতে হোঁচোট খেয়েছেন চিকিৎসকেরা। সূত্রের খবর বলরামের মৃত্যুর কারন জানতে আরও একটু সময় লাগবে। তবে এক ঘটনার সঙ্গে ঝাড়খন্ড যোগ রয়েছে সেই বিষয়ে অনেকটাই নিশ্চিত গোয়েন্দারা। তদন্তে এখনও বেশ কয়েকটি মিসিং লিঙ্ক রয়েছে-

* অর্চনা ও বলরামের নাম হোটেলের গেস্ট লিস্টে নেই কেন?

* এত কিছু ঘটে যাওয়ার পরও হোটেল কতৃপক্ষ কিছুই জানতে পারেনি?

* হোটেলে বাঁধাহীন ভাবে কি করে বহিরাগতরা প্রবেশ করত?

* সিসিটিভির ফুটেজ উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ভাবে উদাও করা হয়েছে?

* জয়দেব ও হরিহরের খোঁজ মিলছে না কেন? তারাই কি মুল অভিযুক্ত নাকি তাদের সঙ্গেও ঘটে গেছে কোনও রহস্যজনক ঘটনা।

* শুধুই কি হোটেলের ইমেজ বাঁচাতে আশিষ এবং অন্যরা দেহ লোপাট করে?

* হোটেলের নিরাপত্তা ব্যাবস্থার দিকে কতটা ফাঁক রয়েছে?

*বলরাম কবে কলকাতায় এসেছিল সেই বিষয় সঠিক তথ্য দিতে চাইছেনা কেন তাল পরিবার?

* বলরাম ছাড়া আরও কারুর সঙ্গে বিবাহবহির্ভুত সম্পর্ক ছিল অর্চনার?

* সেই দিন এই হোটেলে কার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিল অর্চনা?

*এই হোটেলে কি তার নিয়মিত যাওয়া আসা ছিল?

এই মুহুর্তে তদন্তকারিরা এই প্রশ্নগুলির উত্তর খুঁজতেই মড়িয়া হয়ে উঠেছে। এই প্রশ্নেগুলির উত্তর পেলেই এই ঘটনার মিসিং লিঙ্ক পাওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করছেন গোয়েন্দারা।