নেপিদ: ফের বর্মি সেনার উপর মারাত্মক হামলার ঘটনা সামনে এল। বৌদ্ধ প্রভাবিত জঙ্গি সংগঠন আরকান আর্মি আক্রমণে এক ডজন বর্মি সেনা মারা গিয়েছেন। মায়ানমারের স্থানীয় কিছু সংবাদমাধ্যম এই খবর জানাচ্ছে। ঘটনাস্থল উত্তর মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশ।

সম্প্রতি এই এলাকায় হামলা চালিয়েছিল আরকান আর্মি। সেই হামলায় বেশ কিছু সেনা কর্মীর মৃত্যু হয়। এরপরে একটি পুলিশ চৌকি গুঁড়িয়ে দেয় জঙ্গি সংগঠনটি। মঙ্গলবার জানা যাচ্ছে জঙ্গি হামলায় ১২জন সেনার মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজন উচ্চপদস্থ। রাখাইন প্রদেশ পূর্বতন আরকান রাজ্য হিসাবেও সুপরিচিত। এখানে স্থানীয় রোহিঙ্গা মুসলিমদের সশস্ত্র সংগঠন আরশা বনাম বৌদ্ধ প্রভাবিত জঙ্গি সংগঠন আরকান আর্মির লড়াই চলে। তাঁদের দুপক্ষের বিরুদ্ধেই সেনা অভিযান চলছে।

রাখাইনের অপরদিকে রয়েছে বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকা। সেখানকার স্থানীয় উপজাতি বিদ্রোহীদের সঙ্গে আরকান আর্মি এবং আরশা দুটি সংগঠনেরই সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। শুধু তাই নয়, উত্তরপূর্বাঞ্চল ভারতের দুটি অন্যতম জঙ্গি সংগঠন আলফা এবং এনএসসিএন(খাপলাং) এর সরাসরি সম্পর্ক। সম্প্রতি সীমান্ত এলাকায় অভিযান চালায় বর্মি সেনা। তাতে কয়েকটি জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপর সবথেকে বড় হামলাটি হল।

মায়ানমারের সংবাদমাধ্যমের দাবি গত ৫ এপ্রিল বর্মিসেনার উপর হামলা চালিয়েছিল আরকান আর্মি। প্রায় চারদিন পর সেই হামলার প্রমাণ মিলেছে। সংঘর্ষের কথা স্বীকার করলেও নিহত সেনাদের সংখ্যা উল্লেখ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। বেশ কিছু সামরিক অস্ত্র উদ্ধারের দাবি করেছে আরাকান আর্মি।