কলকাতা: রাজ্যে ঘটে গিয়েছে এক ভয়াবহ হত্যার ঘটনা। একই পরিবারের তিনজন খুন হয়েছে মুর্শিদাবাদে। উদ্ধার হয়েছে তাদের দেহ। নামে ওই ব্যক্তি কিছুদিন আগে আরএসএসে যোগ দেন বলে সূত্রের খবর। আর এই আরএসএস কর্মী খুনের ঘটনায় কার্যত উত্তাল রাজ্য- রাজনীতি।

জিয়াগঞ্জে প্রাথমিক শিক্ষক প্রকাশ পাল, তাঁর স্ত্রী বিউটি পাল ও ৬ বছরের শিশুসন্তান আনন্দ পালের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানিয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। সরব হয়েছে রাজ্যের বিজেপি নেতৃত্বও। এবার এই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন অভিনেত্রী অপর্ণা সেন।

কিছুদিন আগেই লিঞ্চিংয়ের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লেখা বিদ্বজ্জনদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন অপর্না। এবার এরাজ্যে আরএসএস কর্মী খুন হওয়ায় তীব্র প্রতিবাদ জানালেন তিনি।

শুক্রবার সকালে ট্যুইট করে অপর্ণা লেখেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে আরএসএস কর্মীর গভর্বতী স্ত্রী ও সন্তানকে খুন করা হয়েছে। এই নৃশংস ঘটনার কারণ যাই হোক না কেন, এটা আমাদের কাছে লজ্জার। ম্যাডাম সিএম! দয়া করে রাজনীতির রঙ না দেখে ন্যয়বিচারের ব্যবস্থা করুন। পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক নাগরিকের দায় আপনার। আপনি সবার মুখ্যমন্ত্রী!’

বৃহস্পতিবার প্রতিবেশীরা বাড়ির ভিতর থেকেই দেহগুলি উদ্ধার করেন৷ সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় পুলিশে৷ প্রাথমিক তদন্তে অনুমান এই তিনজনকেই কোনও ধারাল অস্ত্রের সাহায্যে খুন করা হয়েছে৷ স্ত্রী বিউটি পাল গর্ভবতী ছিলেন বলে সূত্রের খবর৷

যে অস্ত্র দিয়ে আরএসএস কর্মীর পরিবারকে খুন করা হয়েছে, তা উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ সূত্রের খবর ওই মৃত আরএসএস কর্মী পেশায় স্কুল শিক্ষক ছিলেন৷ গত ২০ বছর ধরে মুর্শিদাবাদের গোঁসাইগ্রাম সাহাপাড়া প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষকতা করছেন তিনি৷

পুলিশ জানিয়েছে আদতে সাহাপুরের বাসিন্দা হলেও, ছেলের পড়াশোনার জন্য ওই পরিবার পরে মুর্শিদাবাদে চলে আসে৷ কোনও বিবাদের জেরে এই খুন কীনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ তবে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন কোনও শত্রুতা ওই পরিবারের কারোর সঙ্গে ছিল না৷ তবে খুব নির্মম ভাবে ওই পরিবারকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷

এই ঘটনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগ দাবি করেছেন বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গী। ঘটনার নিন্দা করেছেন মুকুল রায়, রূপা গঙ্গোপাধ্যায় সহ রাজ্য বিজেপির একাধিক নেতা-নেত্রীরা। রাষ্ট্রপতির সঙ্গেও দেখা করবে রাজ্য বিজেপি।