স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আবারও মোদী সরকারকে খোঁচা দিলেন অভিনেত্রী ও চিত্র পরিচালক অপর্ণা সেন। কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়া সেলের তৈরি করা একটি গ্রাফিক্স কার্ড টুইট করেছেন তিনি৷ সেখানে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘ফরওয়ার্ডেড অ্যাজ রিসিভড…’৷ অপর্ণার এই টুইট যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে৷

সোমবার সন্ধ্যায় একটি টুইট করেন অপর্ণা সেন। সেখানে নরেন্দ্র মোদীকে মনমোহন সিংহের তুলনায় ছবিতে অনেক খাটো দেখানো হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, নরেন্দ্র মোদীর বিমর্ষ মুখ, আর মনমোহন থাম্বস আপ দেখাচ্ছেন। তার নিচে মনমোহন ও মোদী জমানার অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকের তুলনা করা হয়েছে।

সেখানে দেখানো হয়েছে, মনমোহন জমানায় বৃদ্ধির হার ছিল ৮.০২ শতাংশ, মোদী জমানায় তা কমে দাঁড়িয়েছে ৫ শতাংশ। মনমোহনের আমলে বেকারত্বের হার ছিল ২.২ শতাংশ। মোদী জমানায় তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭.৯ শতাংশ। তা ছাড়া মনমোহন সিংয়ের সরকারে আমলের যেখানে রফতানির হার ৬৯ শতাংশ ছিল সেখানে মোদী জমানায় -৯.৭১ শতাংশ।

আরও পড়ুন : ফের তৃণমূলে ভাঙন, দল ছেড়ে বিজেপিতে একঝাঁক জেলা পরিষদের সদস্য

কদিন আগেই নাম না করে গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দিয়েছিলেন তিনি। টুইটে তিনি লিখেছিলেন, “তিনি (মনমোহন) এতই ভদ্রলোক ছিলেন যে কখনওই নিজের ঢাক পেটাননি। কিন্তু এটা অনস্বীকার্য যে তিনি অসাধারণ ছিলেন। যদি অদূর ভবিষ্যতে আমাদের অর্থনৈতিক মন্দা, মহামারী ও দাঙ্গার মধ্যে ডুবে যেতে না হয়, তা হলে আমাদের তাঁকেই দরকার। জাতীয়তাবাদ দিয়ে এ সব রোখা যাবে না”।

গত শুক্রবার আর্থিক বৃদ্ধি নিয়ে পরিসংখ্যান প্রকাশ হয়েছে। তাতে দেখা গিয়েছিল, শেষ ত্রৈমাসিকে (এপ্রিল থেকে জুন) আর্থিক বৃদ্ধির হার নেমে এসেছে মাত্র পাঁচশতাংশে। সোমবার আবার কোর সেক্টর তথা মূল আটটি শিল্পক্ষেত্রের উৎপাদনে বৃদ্ধির হার প্রকাশ হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, জুলাই মাসে কোর সেক্টরে বৃদ্ধির হার ছিল মাত্র ২.১ শতাংশ। এই পরিসংখ্যানের প্রতিটিই যে অর্থনীতির মন্দোগতির দিকে ইঙ্গিত করছে তা বলাবাহুল্য। ফলে মোদী সরকার তথা বিজেপি-র উপর রাজনৈতিক চাপও বাড়ছে।

এই পরিসংখ্যান প্রকাশিত হওয়ার পরই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং সেটাকে ম্যান-মেড সঙ্কট বলে মন্তব্য করেছিলেন৷ নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেছিলেন, প্রতিহিংসার রাজনীতি ছেড়ে শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষের কথা শুনে অর্থনৈতিক সঙ্কট থেকে দেশকে উদ্ধার করুন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও