সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: ‘ভবিষ্যতের ভূত’ স্ক্রিনিং বন্ধের পর থেকেই তিনি রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন। পথ নাটক থেকে প্রতিবাদী আলোচনায় ধর্না দিয়েছেন। বর্তমান রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কিন্তু পূর্ববর্তী বাম সরকার ঘেঁষা পোস্ট করতেই সেই তিনি অর্থাৎ পরিচালক অনীক দত্ত ঘায়েল হলেন পালটা বোমায়।

বোমা যথেষ্ট আঘাত লাগার মতো কারণ বোমাটি ছুঁড়েছিলেন বিখ্যাত অভিনেত্রী এবং পরিচালক অপর্ণা সেন। বাম জমানায় এমনই এক ঘটনার প্রসঙ্গ সামনে এনে তিনি অনীক দত্তকে যেন বলার চেষ্টা করেছেন এমন ঘটনা শুধু বর্তমান সরকার নয় বারংবার একই ঘটনা ঘটিয়েছে পূর্ববর্তী বাম সরকারও।

‘ভবিষ্যতের ভূত’ খ্যাত পরিচালক অনীক দত্ত বাম জমানায় রাজ্যের দুই মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু এবং বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে নিয়ে একটি পোস্ট তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন। বিষয় রাজ্যে কোনও ছবির স্ক্রিনিং বন্ধ হয়ে যাওয়া। জনপ্রিয় পরিচালকের ওই পোস্টে বামেদের পক্ষে কথা বলার ইঙ্গিত ছিল। এরই পালটা দেন বিখ্যাত অভিনেত্রী এবং পরিচালক অপর্ণা দেন। অনীক দত্ত যে পোস্ট শেয়ার করেছিলেন সেটিতে লেখা ছিল, ‘৩৪ বছর এনারাও বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। না ,সেদিন উপর মহলের নির্দেশে কোনও সিনেমাও বন্ধ করতে হয়নি। চলচিত্র জগতের মেরুদণ্ডে কেউ আঘাত হানেনি। জনগণের করের টাকা থেকে সরকারকে ২০ লক্ষ টাকা তো দূর, ২০ পয়সাও জরিমানা দিতে হয়নি।’ ।

অপর্ণা সেনের সোশ্যাল মাধ্যমে ওই পোস্টের মন্তব্যটি কর বা জরিমানা বিষয় নিয়ে বলেননি। তিনি বলেন ছবি স্ক্রিনিং না হতে দেওয়ার প্রসঙ্গে। বিখ্যাত পরিচালক লিখেছেন, ” ‘Executioner’ নাটা মল্লিকের ওপরে বানানো একটি ফিল্ম বুদ্ধবাবুর এক কথায় নন্দন থেকে তুলে দেওয়া হয়েছিল কিন্তু অনীক! সেদিন কেউ প্রতিবাদ করেনি। অবশ্য তুমি তখন কলকাতায় ছিলে না।’ নাটা মল্লিক অর্থাৎ হেতাল পারেখ নামক তরুণীকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত ধনঞ্জয়কে যিনি ফাঁসি দিয়েছিলেন সেই ফাঁসুড়েকে নিয়ে ছিল সেই তথ্যচিত্র।

অনীক দত্ত অবশ্য এই কথার পালটা এক হাত নেন নি। তিনি লেখেন , “রিনা দি (অপর্ণা সেনকে ঘনিষ্ঠ মহলে এই নামেই সবাই ডাকেন) এই তথ্যচিত্রের বিষয়ে আমি একটু জানতে চাই। নাটা মল্লিকের ছবিটা কেন দেখাতে দেওয়া হয়নি ? কেউ প্রতিবাদ করেন নি কেন? তখন কি ফিল্মের গনমান্য ব্যক্তিত্বরা ভয় পেতেন না কি চাটুকার ছিলেন? যদিও কোনওরকম হস্তক্ষেপই বরদাস্ত করা যায় না কিন্তু তাঁর সঙ্গে কি বর্তমান ঘটনার কি আদৌ কোনও তুলনা চলে?”

নানাবিধ প্রশ্নের পর তিনি অপর্ণা সেনকে সম্মান জানিয়ে লিখেছেন , “রিনাদি তোমাদের অবশ্য অনেক অভিজ্ঞতা। আমরা হয়তো অনেক কিছুই জানি না। তোমরা সিনিয়ররা আমাদের ভুল শুধরে দিতে পারবে। তোমরা নিজের থেকে গিয়ে এসেছিলে বলেই আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলে বলে আমাদের প্রতিবাদ জোর পেয়েছিল। কাল সুপ্রিম কোর্টে যে রায় দিয়েছে তাতে তোমাদের অনেকটা অবদান আছে। খুব হেনস্থা হয়েছি তো গত এক বছরে তাই একগাদা বাজ্ঞি কথা লিখলাম। মার্জনা কোরো। Regards. warmly – অনীক।”

অনীক দত্তের পরের কোনও কথারই অবশ্য কোনও উত্তর দেন অপর্ণা সেন। ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবি প্রেক্ষাগৃহে চলতে না দেওয়ার প্রতিবাদী মিছিলে উপস্থিত ছিলেন তিনি। পাশাপাশি তিনি যে বিষয় নিয়ে অনীক দত্তকে উত্তর দিয়েছেন সেই বিষয়টি আজও বিতর্কিত কারণ ধনঞ্জয়ের ফাঁসি হওয়া নিয়ে সেই সময়ে ব্যাপক বিতর্ক হয়েছিল। তৎকালীন মুক্ষ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্ত্রী’র চাপ অনেকটা কাজ করেছিল ওই ফাঁসির নির্দেশে। ধনঞ্জয়কে নিয়ে নির্মিত সিনেমাটিতেও এই প্রসঙ্গ উঠে এসেছিল।