মুম্বই- অনুষ্কা শর্মা ও রণবীর সিং একসঙ্গে মোট ৩টি ছবিতে কাজ করেছেন। ব্যান্ড বাজা বারাত ছবিতে তাঁদের রসায়ন মুগ্ধ করেছিল দর্শকদের। শুধু পর্দায় নয়। বাস্তবেও সম্পর্কে ছিলেন অনুষ্কা ও রণবীর। সেই রসায়নই যেন আবার ফুটে উঠল একটি অ্যাওয়ার্ড শোয়ে।

সম্প্রতি এলি বিউটি অ্যাওয়ার্ডস-এ উপস্থিত ছিলেন অনুষ্কা ও রণবীর। মঞ্চে দাঁড়িয়ে রণবীর সাফল্য নিয়ে কথা বলছিলেন। কিন্তু রণবীর যেখানে, সেখানে পাগলামি থাকবে না, তা কি হয়! তাই রণবীর সঙ্গে সঙ্গে মাইক নিয়ে পৌঁছে গেলেন অনুষ্কার কাছে। অনুষ্কা সেই সময়ে দর্শকাসনে বসে।

অনুষ্কার সামনে গিয়ে রণবীর বললেন, অসাধারণ গুণী ও সুন্দরী অনুষ্কা শর্মাকে জিজ্ঞাসা করি, সাফল্য মানে আপনার কাছে কী? প্রশ্ন শুনে রণবীরকে মজা করেই বকুনি দিলেন অনুষ্কা। অনুষ্কা গম্ভীর গলায় বললে, রণবীর তুমি কিন্তু অনুষ্ঠানের সঞ্চালক নও।

অনুষ্কার এই উত্তরে রীতিমতো থতমত খেয়ে যান রণবীর। সঙ্গে সঙ্গে ফের মঞ্চে ফিরে যান রণবীর। ভিডিওটি এই মুহূর্তে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে রণবীর এলি আইকন ম্যান অফ দ্য ইয়ার-এর খেতাব পেয়েছেন। অন্যদিকে এলি ইমপ্যাক্ট ট্রফি পেয়েছেন অনুষ্কা। এছাড়াও খেতাবজয়ীদের মধ্যে রয়েছেন করিনা কাপুর, তারা সুতারিয়া, জাহ্নবী কাপুর, অনন্যা পাণ্ডে, মানুষী ছিল্লর।

রণবীর ও অনুষ্কা এর আগে যে ছবিগুলিতে অভিনয় করেছেন, সেখানেও একই রকমের রসায়নই ধরা পড়েছে। দুজনের এই লাভ অ্যান্ড হেট রিলেশনশিপ বেশ পছন্দ দর্শকদের।

ব্যান্ড বাজা বারাত ছবিতে দুজন ওয়েডিং প্ল্যানার্সের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন অনুষ্কা ও রণবীর। সেই ছবিই এই জুটির প্রথম ছবি ছিলে। ব্যান্ড বাজা বারাতের পর থেকেই সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন রণবীর ও অনুষ্কা। এর পরে লেডিস ভার্সস রিকি বেহল ও দিল ধড়কনে দো ছবিতে অভিনয় করেছেন এই জুটি। কিন্তু সম্পর্ক টেকেনি দুজনের।

তবে সম্পর্ক ভেঙে গেলেও দুজনের বন্ধুত্বে কোনও প্রভাব পড়েনি। এর পরে অনুষ্কা শর্মা সম্পর্কে জড়ান বিরাট কোহলির সঙ্গে। ২০১৭-য় দুজনে বিয়ে করেন। অন্যদিকে রণবীরও বলিউডেরই আর এত ডিভা দীপিকা পাডুকোনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান। তাঁরাও ২০১৮-য় বিয়ে করে এখন সংসার করছেন।

প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে রণবীর কপিল দেবের বায়োপিক ৮৩ নিয়ে ব্যস্ত। তাঁকে কপিলের চরিত্রেই অভিনয় করতে দেখা যাবে। অন্যদিকে অনুষ্কাকে শেষ জিরো ছবিতে দেখা যায়। তবে ভবিষ্যতে কোন ছবিতে তাঁকে আবার দেখা যাবে, তা এখনও জানা যায়নি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.