ফাইল ছবি। ঘটনার সঙ্গে কোনও যোগ নেই।

মুম্বই- পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে উঠেছে যৌন হেনস্থার অভিযোগ। অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ দাবি করেছেন বাড়িতে ডেকে এনে তাঁকে হেনস্থা করার চেষ্টা করেছিলেন অনুরাগ। যদিও সেই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন পরিচালক।

তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন যে এই সব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। অনুরাগ এর পাশে দাঁড়িয়েছেন তাঁর ছবির বেশ কয়েকজন অভিনেত্রী।

এবার অনুরাগের প্রাক্তন অ্যাসিস্ট্যান্ট জয়দীপ সরকার পরিচালকের সমর্থনে মুখ খুললেন। তিনি জানালেন, বহু বছর আগে এক অভিনেত্রী ছবিতে সুযোগ পাওয়ার জন্য নিজে কাস্টিং কাউচ করতে চেয়েছিলেন।

অভিনেত্রীর এই আচরণে খুবই ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন অনুরাগ। ২০০৪ সালে ‘গুলাল’ ছবির একটি চরিত্রের জন্য খোঁজ করছিলেন পরিচালক। তখন এক অভিনেত্রী সেই চরিত্রের জন্য অনুরাগের সঙ্গে দেখা করতে চান বলে জানিয়েছেন প্রাক্তন অ্যাসিস্ট্যান্ট জয়দীপ।

পরিচালক রাজি হয়েছিলেন সেই অল্প বয়সী অভিনেত্রীর সঙ্গে দেখা করতে। দেখা করার পর অনুরাগ চিত্রনাট্য পড়ে শুনিয়েছিলেন তাঁকে।

একাধিক টুইট করে জয়দীপ দাবি করেছেন যে, চিত্রনাট্য পড়া হয়ে গেলে সেই অভিনেত্রী শাড়ির আঁচল নামিয়ে দেন। বারবার সেই অভিনেত্রী শাড়ির আঁচল নামিয়ে দিচ্ছিলেন বলে অনুরাগ তাকে স্পষ্ট জানিয়ে ছিলেন যে, চরিত্রের সঙ্গে তিনি খাপ খেলে তবেই সুযোগ পাবেন।

অন্য কিছু করে সুযোগ পাওয়া যাবে না। সঙ্গে এই আচরণ অভিনেত্রীকে বন্ধ করতে বলেছিলেন। পরে এই ঘটনা নিয়ে খুবই হতাশা প্রকাশ করেছিলেন অনুরাগ। অনুরাগ বলেছিলেন, অধিকাংশ অল্প বয়সী অভিনেত্রী মনে করেন এভাবে তাঁরা কাজের সুযোগ পাবেন এবং এটি খুব দুঃখজনক।

অনুরাগের সঙ্গে কাজ করেছেন এমন অভিনেত্রীরাও তাঁর স্বপক্ষে মুখ খুলেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন পরিচালক তাঁদের সঙ্গে কোনোদিন খারাপ আচরণ করেননি। বরং অনুরাগের কাছে তারা সবসময় নিরাপদ বোধ করেছেন।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি পায়েল ঘোষ নামে এক অভিনেত্রী দাবি করেন, ২০১৪-২০১৫ সালে অনুরাগ কষ্যপ তাকে যৌন হেনস্থা করেছিলেন। যদিও এই অভিযোগের স্বপক্ষে তিনি কোন প্রমাণ দেখাতে পারেননি কারণ তিনি তারপর থেকে বহুবার মোবাইল ফোন পরিবর্তন করেছেন।

অনুরাগ ও স্পষ্ট জানিয়েছেন যে তার অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তিনি কখনো কোনদিন অভিনেত্রীদের সঙ্গে এমন আচরণ করেন নি।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।