মুম্বই : মোস্ট কনট্রোভার্শিয়াল রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’ শুরু হতেই টিআরপি পড়তে শুরু করেছে অন্যান্য ধারাবাহিক এবং রিয়েলিটি শোয়ের৷ সিজন ১২-এর সবচেয়ে জনপ্রিয় সেলেব্রিটি অনুপ জালোটা এবং জসলিন মাথারু৷ তাঁদের ব্রেক আপ, প্যাচ আপ, জসলিনের প্রেগনেন্সি সবকিছু নিয়েই চর্চায় ছিলেন এই সেলেব্রিটি কাপেল৷ এখন সেসব অতীত৷ সম্প্রতি বিগ বস থেকে ইভিক্টেড হয়েছেন অনুপ জালোটা৷ বেরোতেই বোমা ফাটালেন একের পর এক৷

তাঁর সঙ্গে নাকি জসলিনের কোনও সম্পর্কই ছিল না৷ সঙ্গীত ছাড়া তাঁদের মধ্যে আর কোনও সম্পর্কই নেই৷ বিগ বস হাউজ থেকে বেরতেই একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, “আমাদের মধ্যে শুধুমাত্র মিউজিকাল সম্পর্ক রয়েছে৷ কোনও ফিজিকাল সম্পর্ক নেই৷ আমি ওর শিক্ষক আর ও আমার শিষ্যা৷ এর বেশি আর কিছুই নেই আমাদের মধ্যে৷ আমার পরিবারের কেউ ওকে ঠিক করে চেনে না৷ জসলিনের বাবা আমার ভালো বন্ধু হন৷ সেই সুবাদেই মাত্র পাঁচবার আমাদের বাড়িতে এসেছে জসলিন৷”

তিনি আরও বলতে থাকেন, “জসলিন নিজে যদি সবাইকে বলে থাকে যে আমরা প্রেমিক-প্রেমিকা তাহলে ও কী কারণে এমনটা বলেছে সেটা ও বিগ বস হাউজ থেকে বেরলে আমি জিজ্ঞেস করব৷ আমাদের দেখা সাক্ষাৎই হত না তাহলে সম্পর্ক গড়ে উঠবে কীকরে? ওই আমাকে বিগ বস আসার জন্য একটু জোরজার করে৷ আমি প্রথমে বারণ করে দিই৷ তারপর জসলিনের বাবাও আমায় অনুরোধ করেন যাওয়ার জন্য৷ আমি ওকে খুব ভালবাসি ঠিকই কিন্তু সেটা শুধুই গুরু-শিষ্যার স্নেহ৷”

 

তাঁদের বিগ বসে এন্ট্রি নেওয়ার পর থেকেই বিতর্ক উঠেছিল তুঙ্গে৷ ২৮ বছয় বয়সী জসলিনের সঙ্গে অনুপ জালোটার প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে তৈরি হয়েছিল মিম, ট্রোল৷ তাঁদের সম্পর্কের ভাঙন, প্যাচ আপ এইবার প্রেগনেন্সি৷ নিন্দুকদের মতে সবটাই পাব্লিসিটি স্টান্ট৷ এতে শোয়ের টিআরপিও আরও বাড়বে এবং অনুপ জালোটা এবং জাসলিন মাথারুকেও সকলে ভোট করবে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.