দেবময় ঘোষ, কলকাতা: ভোটের কয়েক মাস আগেই বীরভূমে কার্যত ছক্কা হাঁকাল বিজেপি। কোপ পড়ল সরাসরি অনুব্রত মণ্ডলের পরিবারে। শুক্রবার বিজেপিতে যোগ দিলেন তাঁরই এক আত্মীয়।

এদিন, বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডলের ভাইপো বিশ্বরূপ মণ্ডল ওরফে টাইগার। বিজেপির তরফে এই খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতা তথা বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের আত্মীয়কে এইভাবে বিজেপিতে আনতে পারাকে বড় সাফল্য বলেই মনে করছেন রাজ্য বিজেপির নেতারা।

শুধুমাত্র বিশ্বরূপ মণ্ডলই নয়, শুক্রবারই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন আরও অনেকে। সেই তালিকায় আছেন ভাটপাড়া টাউনের যুব তৃণমূলের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট শ্রী রবি সিং। রয়েছেন ভাটপাড়ার অনিল গুপ্তা ও সুনীল শ। নৈহাটির শুভম সিং-ও যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে।

মুকুল রায়ের উপস্থিতিতে এদিন বিজেপতে যোগ দেন তাঁরা।

১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডের সভার পরের দিনই তৃণমূলে বড়সড় ভাঙনের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মুকুল রায়। তাঁর দাবি ভোটের আগে তৃণমূলের অন্তত ৬ থেকে ৮জন সাংসদ বা বিধায়ক যোগ দেবেন বিজেপিতে। তাঁরা প্রস্তুত থাকলেও পুলিশের ভয়ে যোগ দিতে পারছে না বলে জানান মুকুল।

কয়েকদিন আগেই তৃণমূলকে বার্তা দিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

সৌমিত্র খাঁ-র উদাহরণ দিয়ে মুকুল বলেন, যতদিন উনি তৃণমূলে ছিলেন কোনও মামলা ছিল না। বিজেপিতে যোগ দিতেই শুরু হয়েছে মামলা। তাই পুলিশি হেনস্থার ভয়ে যোগ দিতে পারছেন না তৃণমূল নেতারা। ‘কতজন বিজেপিতে আসছে, তাদের মাথা গুণতি করুক তৃণমূল।’ এমনটাও বলেছেন মুকুল।

যদিও এদিন সেইসব নেতাদের নাম নেননি মুকুল রায়, তবে জানিয়েছেন ভোট ঘোষণা হলেই তাঁরা যোগ দেবেন বিজেপিতে। ভোট ঘোষণা হলে পুলিশি রাজের আর কোনও সম্ভাবনা ধাকে না। সেইজন্যই নাকি ওইসব তৃণমুল নেতারা অপেক্ষা করছেন বলে জানিয়েছেন মুকুল।

সৌমিত্র খাঁকে বিজেপিতে যোগদান করানোর পরই মুকুল। বলেছিলেন, তৃণমূলের আরও ছ’জন সাংসদ বিজেপিতে আসার জন্য তৈরি আছেন। তার পর থেকে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে জল্পনা চলছেই। কে কে রয়েছেন মুকুলের নিশানায়? মুকুল ঘনিষ্ট শিবিরের ব্যাখ্যা, দক্ষিণ বঙ্গে তৃণমূলের ৪ সংসদ তৈরি রয়েছেন।