স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে, মা বলেছেন কোনও চিন্তা নেই৷ ৪২-এ ৪২ হবে৷ ২১ জানুয়ারি মঙ্গলকোটে যোগাদ্যা মায়ের মন্দিরে পুজো দিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এই দাবি করেছিলেন বীরভূমে তৃণমূলের সর্বেসর্বা অনুব্রত মণ্ডল৷ তারপরও একাধিকবার জোর গলায় ৪২টি আসন জেতার দাবি জানিয়েছেন৷ কিন্তু বুথ ফেরৎ সমীক্ষার ফল দেখার পর ঢোঁক গিললেন কেষ্টা৷ স্বীকার করে নিলেন, এ যাত্রায় ৪২-এ ৪২ সম্ভব নয়৷

বিয়াল্লিশে বিয়াল্লিশ৷ ১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে এই স্লোগান বেঁধে দিয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ প্রত্যেকটা প্রচারে তৃণমূলের বড়, ছোট, মেজ, সেজ নেতাদের মুখেও সেই স্লোগান শোনা গিয়েছে ৷ অনুব্রত মণ্ডলও তার ব্যতিক্রম ছিলেন না৷ কিন্তু রবিবার সন্ধ্যের পর বুথ ফেরৎ সমীক্ষাগুলি দেখে তিনি ৪২টি আসন জেতার আশা ছাড়লেন৷ অনুব্রত মনে করেন, খুব ভাল ফল করলে তৃণমূল ৩৯টি আসন পেতে পারে৷ এর বেশি পাবে না৷

বুথ ফেরত সমীক্ষাকে একহাত নিয়ে কলকাতা 24×7-কে অনুব্রত বলেন, “২৩ তারিখ দেখবেন, এসব বুথ ফেরৎ সমীক্ষা কিচ্ছু মিলবে না৷ আসলে এগুলে বিজেপির চাল৷ তৃণমূল কর্মীদের মনোবল ভাঙার চেষ্টা করছে৷ যাতে তারা গণনারদিন গণনাকেন্দ্রে না যায়৷ অনেক ন্যাশনাল চ্যানেলের মাথায় বিজেপি নেতারা বসে আছে৷ খুব খারাপ রেজাল্ট হলেও আমরা ৩৭ টি পাবো। না হলে আমরা ৩৯ টি সিট পাবই। দুটো সিট হাতছাড়া হবে। রাজ্যে বিজেপি একটার বেশি সিট পাবে না। আর সারা দেশে ১০০ থেকে ১২০টি সিট পাবে বিজেপি। সরকারে বিজেপি আসছে না। সেটা মোদী-অমিত শাহকে ভাল করে লক্ষ্য করলেই বোঝা যাবে৷”

ভোট পর্যন্ত যে চেনা জোশ ছিল অনুব্রত’র গলায়, গণনার দু’দিন আগে তা যেন অনেকটাই নরম! আর তৃণমূল নেতাদের আত্মবিশ্বাসে ফাটল ধরায় উচ্ছ্বসিত বিজেপি নেতারা৷