স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ভোটের সময়ে নিরাপত্তায় নিযুক্ত কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিলেন তৃণমূলের দাপুটে নেতা অনুব্রত মণ্ডল। সোমবার পঞ্চম দফার নির্বাচন শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখী হয়ে এই কথা বলেন বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি।

আগামী দফার বাঁকুড়া জেলার দুই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হওয়ার কথা। ওই জেলার ভোট পরিচালনার জন্য তৃণমূলের পক্ষ থেকে বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অনুব্রতবাবুকে। এদিন ওই সন্ধ্যার দিকে জেলাতেই হাজির ছিলেন দিদির প্রিয় ভাই কেষ্ট। পত্রসায়ারে জনসভা করার পরে সেখানেই কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন তিনি।

বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে অনুব্রতবাবু বলেন, “কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বুথের বাইরে থাকার কথা। কেন্দ্রীয় বাহিনী খুব বাড়াবাড়ি করছে। ওদের এক্তিয়ারের বাইরে কাজ করছে। কোনও অংশে ওরা করতে পারে না। তাঁর জন্যে ওদের বিরুদ্ধে মামলা করব।” কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বিরুদ্ধে ত্ররীনোমুলের অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এর আগেও বিজেপির পক্ষ নিয়ে বাহিণির জওয়ানেরা কাজ করছে বলে অভিযোগ করেছিল তৃণমূল। অনুব্রতবাবুর মুখেও সেই কথা শোনা গিয়েছিল। তবে সরাসরি মামলা করার কথা এদিনই বললেন তিনি।

সোমবার পঞ্চম দফায় রাজ্যের তিন জেলার সাত আসনে ভোট গ্রহণ ছিল। এই সব আসনেই দলীয় প্রার্থীর জয়ের বিষয়ে নিশ্চিত বীরভূম জেলার তৃণমূল সভাপতি। তাঁর কথায়, “আজকে সাতটাতে ভোট হল, সাতটাই জিতে গেছে।” রাজ্যের ৪২টি আসনের যে তৃণমূল প্রার্থীরাই জিতবেন তাও এদিন স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। কেষ্টর কথায়, “পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল বিয়াল্লিশে ৪২টা আসনই পাবে সেটা ১০০ শতাংশ নিশ্চিত।”

বিজেপি শিবির অবশ্য রাজ্যের ৪২ আসনের মধ্যে ২৮ থেকে ৩০টি দখল করার দাবি করেছে। প্রথমে ২২ টা থাকলেও পরে আরও বেশি আসনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে। এই বিষয়ে অনুবত মন্ডল বলেছেন, “বিজেপি অত আসন পেলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব। বিজেপি সরকারে থাকলেই যদি জতে যায় তাহলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।” সমগ্র দেশের ভোট মিলিয়ে বিজেপি ১০০ থেকে ১২০টি আসনের বেশি পাবে না বলে দাবি করেছেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি।