স্টাফ রিপোর্টার, বোলপুর: যে পাড়া থেকে ভোট কম, সেখানে সব কাজ বন্ধ। সরকারি কাজ কোথায় হবে, না হবে, তাই নিয়ে এবার প্রকাশ্যে নিদান দিলেন বীরভূমের তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

মঙ্গলবার বীরভূমের খয়রাশোলের বুথভিত্তিক কর্মী সম্মেলন ছিল। সেখানেই বুথভিত্তিক কর্মী সম্মেলনে খয়রাশোলের নাকড়াকোন্দা পঞ্চায়েতের ৫৬ নম্বর বুথ সভাপতি চন্দ্রশেখর বাগদিকে ভোট কম পাওয়ার কথা জিজ্ঞেস করেন অনুব্রত। সেই প্রশ্নের জবাবে বুথ সভাপতি মুখার্জি পাড়ার কথা জানান। সঙ্গে সঙ্গেই সেই পাড়ায় কাজ বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, “দেখি বিজেপি কাজ করে দেয় কিনা। উন্নয়ন করে দেয় কিনা। দিল্লি থেকে কাজ করে দেয় কিনা!”

বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে তত বিতর্কিত কথার বহর বাড়ছে অনুব্রত মণ্ডলের। সোমবারই ‘অ্যারেস্ট করিয়ে দেওয়া’র ‘নিদান’ দিয়েছেন তিনি। দলের এক মহিলা কর্মীর বাড়িতে হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত বিজেপি কর্মীদের সম্বন্ধে এই ‘নিদান’ দেন অনুব্রত। জেলা সহ সভাপতি তথা সরকারি কৌঁসুলি মলয় মুখোপাধ্যায়কে এই নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

এদিকে, তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে এদিন রাতেই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বিজেপি। প্ররোচনা দেওয়া ও ‘বিজেপি কর্মীদের মেরে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার’ মত উস্কানিমূলক বক্তব্যের জন্য মল্লারপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক অতনু চট্টোপাধ্যায়।

১৪ সেপ্টেম্বর রাতে মল্লারপুর থানায় বিজেপির তরফ থেকে অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে। জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক অতনু চট্টোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, অনুব্রত মণ্ডল ১৫ জুলাইয়ের সভা থেকে হুমকি দেওয়ার পর থেকেই এলাকার বিজেপি কর্মীরা ভীত। এলাকায় ওই দিনের পর থেকে বিজেপির ওপর তৃণমূলের নির্যাতন বেড়ে গিয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও তৃণমূলের কর্মসূচিতে করোনা বিধি মানা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ তোলা হয়েছে।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।