তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ‘তোমাকে ভয় পাইনা আমরা। তুমি কুত্তার মতো মারলে তোমাকে বিড়ালের মতো মারবো’। এই ভাষাতেই ঘাটালের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের সাম্প্রতিক মন্তব্যের কড়া জবাব দিলেন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

ঘটনার সূত্রপাত দিন কয়েক আগে কেশপুরে। সেখানেই তৃণমূলের সঙ্গে সংঘর্ষে জখম হন কয়েকজন বিজেপি কর্মী। তাঁদেরই এদিন দেখতে গিয়েছিলেন ভারতী ঘোষ। সেখানেই রাজ্যের শাসক দলের কর্মীদের উদ্দেশ্য করে ভারতী ঘোষ বলেন, “তোরা বাড়াবাড়ি শুরু করেছিস। তোদের জব্দ করতে আমার বেশি সময় লাগবে না। উত্তর প্রদেশ থেকে এক হাজার ছেলে নিয়ে আসব। তোদের ঘর থেকে টেনে বের করে কুকুরের মতো মারব।”‍

রবিবার ভারতী ঘোষের সেই বক্তব্যের পালটা জবাব দিয়েছেন তৃণমূলের দাপুটে নেতা অনুব্রত মণ্ডল। এদিন তিনি বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী শ্যামল সাঁতরার সমর্থণে বাঁকাদহে নির্বাচনী জনসভায় হাজির ছিলেন।

সেই জনসভায় দাঁড়িয়েই ঘাটালের বিজেপি প্রার্থীকে আক্রমণ করেছেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি। ভারতী ঘোষকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “আমরা ভয় পাই না। তুমি ফোঁস করলে আমরাও ফোঁস করবো। তোমরা যেভাবে চলবে আমরাও সেভাবেই চলব।” জীবনে কোনও দিন ভয় পাননি, এখনো পান না আর আগামী দিনেও তিনি কাওকে ভয় পাবেন না বলে দাবী করেন অনুব্রতবাবু।

এবারের ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বুথের ভেতর ঢুকবেন না। কর্মীরা ছাড়বে না’। কেন্দ্রীয় বাহিনী যদি বুথের ভীতরে ঢুকে বিজেপির হয়ে ভোট করতে চায় ছেড়ে কথা বলা হবেনা হুঁশিয়ারী দিয়ে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, বাইরে থেকে ভোট করালে ওই কেন্দ্রীয় বাহিনীকেই ‘স্যালুট’ জানাব।

অন্যদিকে, রবিবারেই পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুরে তৃণমূলের ওপর হামলার অভিযোগ৷ বিজেপির বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ করল স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷ জানা গিয়েছে তিন তৃণমূল কর্মী তীরবিদ্ধ হয়েছেন৷ তাঁদের মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ পরে তাঁদের কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হয়৷