চেন্নাই: মাদ্রাস হাইকোর্ট মুসলিম দলগুলিকে তামিলনাড়ু বিধানসভায় মিছিলে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পরেরদিনই হাজারে হাজারে মানুষ নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় চেন্নাইয়ের ওয়াল্লাজাহ রোডে বিশাল মিছিলে হেঁটেছেন।

বুধবার তামিলনাডু বিধানসভায় সিএএ, এনআরসি এবং এনপিআর নিয়ে হাউস রেসোলিউশণের দাবীতে তাঁরা মিছিল করেছেন বলেই জানা গিয়েছে।

হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এই মিছিলের জন্য বিধানসভার বাইরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। বিশাল নিরাপত্তায় ঘিরে ফেলা হয়েছে বিধানসভা চত্বর। তৈরি হয়েছে ব্যারিকেড। ছেপক থেকে যে যে রাস্তা বিধানসভার দিকে যাচ্ছে সব রাস্তাই আটকে দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের মতে, কমপক্ষে ১৫ হাজারের কম-বেশি জনসমাগম হয়। সচিবালয় এবং জেলা কালেক্টর অফিস ঘিরে রাখার পরিকল্পনা নেয় বিক্ষোভকারীরা।

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশে ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি’ বজায় রাখার আবেদন করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, তামিলনাড়ু সরকার মুসলমানদের বিরুদ্ধে কোনো রকমের পদক্ষেপই নিচ্ছে না।

বিক্ষোভকারীরা দাবি করে, গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সংসদে পাশ হওয়া সিএএ-র বিরুদ্ধে একটি প্রস্তাব পাশ করা হোক তামিলনাড়ু বিধানসভায়। যদিও তামিলনাড়ুর শাসক দল এআইএডিএমকে সিএএ-কে সমর্থন জানিয়েছে ইতিমধ্যেই। দল দাবি করেছে, ভারতীয় নাগরিকদের উপর কোনো প্রভাব ফেলবে না নতুন নাগরিকত্ব আইন।

মাদ্রাজ হাইকোর্ট প্রতিবাদকারীদের তামিলনাড়ু বিধানসভার উদ্দেশে পদযাত্রা করার বিষয়ে নিষেধ করেছিল। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, তাঁরা শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদে রয়েছেন এবং বিধানসভা ভবনের দিকে যাবেন না। বিক্ষোভকারীদের সমাগমের দিকে তাকিয়ে গোটা এলাকায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও