জয়পুর: ফের আরও এক আশ্রম থেকে উদ্ধার করা হলে বন্দি কিশোরীদের। আধ্যাত্মিক বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা বীরেন্দ্র দীক্ষিতের ওই আশ্রম থেকে ৭২ জনকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে তল্লাশি চালানো হয় রাজস্থানের শিরোহী জেলার ওই আশ্রম থেকে।

প্রথমে এক পুলিশকর্মীকে ওই আশ্রমে ঢুকতে বাধা দেওয়া হলে প্রথমটায় সন্দেহ হয় পুলিশের। পরে এক মহিলা পুলিশকর্মীকে সেখানে পাঠানো হয়। তিনি গিয়ে দেখেন, সেখানে বন্দি হয়ে রয়েছে বহু কিশোরী। এরপর পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। আপাতত আশ্রমের সঙ্গে যুক্ত লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। আশ্রমের নথিপত্র সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সিরোহীর নয়া খেরা এলাকায় ওই আশ্রমটি রয়েছে।

কিছুদিন আগেই দিল্লিতে এই বীরেন্দ্র দিক্ষিতের ডেরা থেকে বহু নাবালিকাকে উদ্ধার করে পুলিশ। দিল্লির রোহিণী এলাকায় অবস্থিত আধ্যাত্মিক বিশ্ব বিদ্যালয় আশ্রমে অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়। ওই আশ্রমের দণ্ডমুণ্ডের কর্তা ভক্তমহলে প্রবল জনপ্রিয় বীরেন্দ্র দেব দীক্ষিত নামে এক স্বঘোষিত গুরুদেব। গুরুর আশ্রমে মেয়েদের নিয়ে বেআইনি কাজ করা হয় বলে একাধিক অভিযোগ থানায় বেশ কিছু দিন ধরে জমা পড়ছিল।

বেশ কয়েকজন অভিভাবক অভিযোগ জানান, তাঁদের মেয়েদের সঙ্গে আশ্রম কর্তৃপক্ষ কোনওভাবে দেখা করতে দিচ্ছে না। তাঁদের এও অভিযোগ, আশ্রমে পাঠানোর সময় তাঁদেরকে একটি চুক্তিপত্রে সই করানো হত। যাতে লেখা থাকত যে তাঁরা তাঁদের মেয়েকে গুরুর হাতে সমর্পণ করে দিলেন। এমনকি ওই আশ্রমকে মোটা টাকার দান দিতে তাঁরা বাধ্য থাকতেন বলেও অভিযোগ পরিবারগুলির। গুরুর নাকি আবার ১৬ হাজারের মত সঙ্গিনীও আছে বলে সূত্রের খবর।