স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : একসঙ্গে ১১ আইপিএস অফিসারের বদলি করছে রাজ্য। ১৬ নভেম্বরেই আইপিএস বদলি হয়েছিল। চলতি মাসে হাওড়াতেও চার আইপিএস অফিসারের বদলির খবর মিলেছিল। মাঝ ডিসেম্বরেও সেই বদলির প্রক্রিয়া জারি রাখল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

পশ্চিম মেদিনীপুরের এএসপি হিসাবে কাজ করছিলেন অরবিন্দ কুমার আনন্দ। সেই অরবিন্দ আনন্দকে হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটে বদলি করা হয়েছে। বিদিশা কালিতাকে হাওড়া থেকে বিধাননগরের পুলিশ কমিসনারেটে বদলি করা হয়েছে। শনিবার সেই এই অফিসারদের তালিকায় থাকছেন, বাঁকুড়ার এএসপি মেহেদি হোসেন। তাঁকে ব্যরাকপুরে পুলিশ কমিশনারেটে বদলি করা হয়েছে।

সন্দীপ কাররাকে কোচবিহার থেকে দুর্গাপুরে বদলি করা হয়েছে। যশপ্রীত সিংকে পাঠানো হচ্ছে বীরভূম থেকে চন্দননগরে। বিদিত রাজ বুন্দেশকে ঝাড়গ্রাম থেকে শিলিগুড়িতে বদলি করা হয়েছে। সুরিন্দর সিংকে নদিয়া থেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অজয় রানাডে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকার সিআইডি শাখার আইজিপিআসছেন হাওড়ায়। সঙ্গে বদলি হচ্ছেন, ফারহাত আব্বাস, প্রশান্ত কুমার চৌধুরী, এবং দেবর্ষি দত্ত ।

এর আগে ৪ ডিসেম্বর চার আইপিএসের রদবদলের নির্দেশিকা জারি করেছে নবান্ন৷ চারজনই চারটি জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের দায়িত্বে ছিলেন৷ আইপিএস বদলির তালিকায় ছিলেন সুরিন্দর সিং, অভিষেক গুপ্তা, প্রতীক্ষা ঝাড়খারিয়া ও আরিস বিলাল৷

চার আইপিএস অফিসারকে বদলি করে চারটি কমিশনারেটে পাঠানো হয়েছে৷ নদিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুরিন্দর সিংকে শিলিগুড়ি কমিশনারেটের জোন ১ এর এসিপি পদে পাঠানো হয়েছে৷ পূর্ব বর্ধমান জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিষেক গুপ্তা গেলেন বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের বেলঘড়িয়া জোনের এসিপি হয়ে৷

এছাড়া প্রতীক্ষা ঝাড়খারিয়া ও আরিস বিলাল এই দুই আইপিএস অফিসারকে পাঠানো হয়েছে যথাক্রমে হাওড়া ও আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের এসিপি হিসাবে৷ প্রতীক্ষা এর আগে হুগলির অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের দায়িত্বে ছিলেন৷ আরিস ছিলেন পূর্ব মেদিনীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার৷