Bjp delegation meet with Election Commission
ফাইল ছবি।

কলকাতা: বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে কার্যকর হল আদর্শ নির্বাচনী আচরণ বিধি৷ যা প্রত্যেক রাজনৈতিক দলকেই মেনে চলতে হবে৷ একনজরে আচরণ বিধি৷

নির্বাচনের দিন ঘোষণার দিন থেকে আদর্শ আচরণ বিধি সমগ্র রাজ্যজুড়েই বলবৎ হয়৷ সেগুলো হল-

১) যে সব মন্ত্রীরা ভোটের কাজের সঙ্গে থাকবেন,তারা এখন আর সরকারি সফরকে অন্তর্ভূক্ত করতে পারবেন না৷

২) কোনও রাজনৈতিক দল বা প্রার্থীর স্বার্থে সরকারি যানবাহন ব্যবহার করা যাবে না৷

৩) নির্বাচন পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত আধিকারিকদের বদলির ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা৷ যদি করতেই হয় ,তাহলে নির্বাচন কমিশনের অনুমতি লাগবে৷

৪) রাজ্যে কোনও মন্ত্রীই নির্বাচনের সঙ্গে যুক্ত সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের কোনও অফিসারকে সরকারি আলোচনার জন্য কোথাও ডেকে পাঠাতে পারবেন না৷

৫) সরকার খরচে কোনও দলের কৃতিত্ব নিয়ে মুদ্রণ ও বৈদ্যুতিন মাধ্যমে বিজ্ঞাপন ও সরকারি গণমাধ্যমের ব্যবহার নিষিদ্ধ।

৬) সাংসদ, বিধায়ক স্থানীয় এলাকা উন্নয়ন তহবিলে নতুন করে আর তহবিল প্রদান করতে পারবে না৷

৭) ইত্যাদি৷

অন্যদিকে এবার করোনা কালে বুথগুলিতে রাখতে হবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার৷ এছাড়া মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক৷ বয়স্কদের জন্য শৌচালয়ের ব্যবস্থা রাখতে হবে৷ বাড়ি বাড়ি প্রচারে একসঙ্গে ৫ জনের বেশি মানুষ থাকতে পারবেন না৷

নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবন থেকে শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা ঘোষণা করলেন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ। এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানান, করোনা আবহে (Covid situation) ভোট করানোটাই সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ কমিশনের কাছে।

এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বিহার নির্বাচনের উল্লেখ করেন তিনি। উল্লেখ্য করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যেই দেশে প্রথম ভোট ছিল বিহারে। তিন দফা বিহার বিধানসভা নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল করোনা সংক্রমণ। এবারও তাই করোনা পরিস্থিতির দিকে বিশেষ নজর রেখে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (Election commission has issued rules)।

জানানো হয়েছে সংক্রমণ ঠেকাতে প্রচারেই রাশ টানা হবে। প্রচার করার ক্ষেত্রেও একাধিক নিয়ম জারি করেছে কমিশন। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন, প্রচারের জন্য কোন মাঠ ফাঁকা রাখা হবে, তার তালিকা তৈরি করা হবে। এক ঘন্টা বাড়ানো হয়েছে ভোটদানের সময়, যাতে অতিরিক্ত ভিড় এড়ানো যেতে পারে। ভোট দানের লাইনে থাকবে সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলার পদ্ধতি।

কমিশন জানিয়েছে অনলাইনে মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন প্রার্থীরা। রোড শোতে একসঙ্গে ৫টি গাড়ির কনভয় থাকতে পারে। সব ভোটকর্মীদের করোনা টিকা দেওয়া হবে বাধ্যতামূলকভাবে। মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময় প্রার্থীর সঙ্গে থাকতে পারবেন সর্বোচ্চ দুজন। বাড়ি গিয়ে প্রচারে প্রার্থীর সঙ্গে ৫ জনের বেশি থাকতে পারবেন না।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।