স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : টেকনোলজি যত উন্নতির পথে এগোচ্ছে তত মানুষের পারস্পরিক সম্পর্কে ব্যাঘাত ঘটছে৷ সোশ্যাল মিডিয়ার সুবাদে এখন সকলেই এক টাচে একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে৷ তবে গোল বাঁধছে অন্য জায়গায়৷ সাধারণ মানুষ থেকে সেলেব্রিটি কারও পিছু ছাড়ছে না ট্রোলার-এর দল৷ কারণ থাক বা না থাক ট্রোলড হতে হচ্ছে সকলকে৷ এর হাত থেকে বাঁচার দুটোই উপায়৷ এক এড়িয়ে যাও, নয়তো কড়া জবাব দাও৷ এইভাবেই চলছে ডিজিটাল দুনিয়া এবং নেটিজেন৷

যে সকল সেলেব্রিটিরা ট্রোলের কড়া জবাব দেন সেই তালিকায় এখন অনেকেরই নাম উঠে এসেছে৷ অর্জুন কাপুর থেকে শুরু করে করণ জোহার, স্বরা ভাস্কর, সোনম কাপুর সহ অনেকে৷ সেই তুলনায় টলিউডে খুব কম সংখ্যক তারকা রয়েছেন যারা ট্রোল কিংবা মিমের জবাব দিতে পেরেছেন৷ যেমন অঙ্কুশ৷

সম্প্রতি অভিনেতার ‘ভিলেন’ ছবি বেশ চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ অভিনব স্ক্রিপ্ট থেকে শুরু করে অঙ্কুশের নয়া অবতার, সিক্স প্যাক অ্যাবস৷ অন্যদিকে দুই হিরোইনের সংঘর্ষ৷

তবে অঙ্কুশের ফিজিক নিয়ে তোলপাড় হয়ে গিয়েছে টলিপাড়া৷ এমন টোনড বডির হিরো টলিউডে এর আগে দেখা যায়নি বলেই দাবি করছেন অঙ্কুশ ফ্যানেরা৷ সেই ফিজিকই হয়ে উঠল ট্রোলিংয়ের টপিক৷

একজন ট্যুইটারে অঙ্কুশকে লিখেছেন, “#Villain এর এক্সট্রাস দেখছিলাম৷ এই ফিগার বানাতে তোমার তিনজন ট্রেনারের দরকার হয়েছিল? এই রকম লোক হাসানোর মতো আরও কত কথা তোমার জানা আছে একটু বল না৷ তোমাকে ট্রোলও করছি না৷ ছোটও করতে চাই না৷ কিন্তু এই ধরণের সাক্ষাৎকার দিলে আর কিছু বলার থাকে না৷”

উত্তর দিতে একটুও সময় লাগাননি অঙ্কুশের৷ ট্যুইটটি চোখে পড়তেই অভিনেতা ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, “কেন ট্রোল করবে না? ১০০ বার করবে৷ না হলে আমরা না খেতে পেয়ে মরে যাব৷ আমি আইডিয়া দিচ্ছি৷ অঙ্কুশ বলেছে, ‘ভারতে সেরা ফিজিক একমাত্র আমারই৷’ এর পরিপ্রেক্ষিতে হৃত্বিক রোশন বলেছেন, ‘হ্যাঁ রে, আমি তো চপ মুড়ি ভাজি’৷ ভালো না?” অঙ্কুশের এই ব্যাঙ্গাত্মক ট্রোলে তাঁর ভক্তরা বেশ প্রশংসা করেছেন৷ শত ব্যস্ততার মাঝেও যে সময় বের করে তিনি ট্রোলের উপযুক্ত উত্তর দিয়েছেন তারই প্রশংসায় ভরছে এই ট্যুইটার পোস্ট৷