কলকাতা: ‘হইচই’ নিয়ে এবার চলছে প্রকাশ্যে গালাগালি। গতকাল পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যেয় তাঁর আগামী ছবি ‘হইচই আনলিমিটেড’ রিমেক কি কী মৌলিক, তা নিয়ে একটি খোলা চিঠি লেখেন ফেসবুকে। তারপরই শুরু হয় কমেন্টের বন্যা। যেখানে অভিনেতা রাহুল সংবাদিক ইন্দ্রনীলের পক্ষ টেনে কমেন্ট করেন, “মমতার পুলিশ গেস্টাপোগিরি করছে। আপনাদের মতামত চাইছি।” যা আজ পরিচালকের স্টেটাস হয় পরিচালকের। তারপরই পরিচালককে সোশ্যাল মিডিয়ায় অকথ্য ভাষায় গালি দেন অভিনেতা।

দেবের পুজো ইনস্টলমেন্টে ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’। যা রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকি টলিউডে এন্ট্রি নিয়ে ফেলেছে পুলিশও। সৌজন্যে চলচিত্র সাংবাদিক ইন্দ্রনীল রায়। ও তাঁর দাবি। ‘হইচই’ টিজার মুক্তি পর তিনি ট্যুইট করেন। দেবের ‘হইচই অ্যানলিমিটেড পাকিস্তানি ছবি ‘জাওয়ানি ফের নেহি আনি’-এর রিমেক। এই দাবি নিয়ে, তিনি তাঁর বেশ কিছু ট্যুইট পাকিস্তানি প্রযোজক সংস্থান এআরওয়াই-কে ট্যাগ করেন। সঙ্গে দেবের বিরুদ্ধে কিছু ব্যাঙ্গাত্মক কথাও লেখেন। আর ‘হইচই’ ছবির উইকিপিডিয়ার স্ক্রিনশট। যেখানে লেখা হইচই অ্যানলিমিটেড পাকিস্তানি ছবি ‘জাওয়ানি ফের নেহি আনি’-এর রিমেক।

এর পরই রা রা করে ওঠেন দেব ফ্যানেরা। ট্যুইটারে শুরু যুদ্ধ। ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’-এর উইকিপিডিয়া এডিটিং নিয়ে দেব অনুরাগীরা আঙুল তোলেন ইন্দ্রনীলের ওপর। তাঁদের কথায় এই কাজ ইন্দ্রনীলই করেছেন। এমনকি দেবের এক ফ্যান সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে ইন্দ্রনীলকে ‘চোর’ বদনামও দিয়ছেন। এমন পরিস্থিতিতে সাইবার ক্রাইম পুলিশের দ্বারস্থ হন টলিউডের সুপারস্টার দেব। অভিযোগ উইকিপিডিয়ায় তার আগামী ছবি ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’-এর তথ্য সমগ্র কেউ এডিট করেছে। যেখানে লেখা হয়েছে, ‘হইচই অ্যানলিমিটেড’ পাকিস্তানি সিনেমা ‘জাওয়ানি ফের নেহি আনি’-এর রিমেক। কিন্তু অভিনেতার দাবি, এমনটা মোটেও নয়। তাই কে লিখল এমন কথা? সেই রহস্য সন্ধানে সাইবার পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন দেব।

আরও পড়ুন:  বলিউডে কোনওদিন শুরু হবে না #MeToo, দাবি নায়িকার

ছবি: ট্যুইটারের সৌজন্যে

তারপরই সাইবার পুলিশ তলব করেন সাংবাদিক ইন্দ্রনীলকে। কিন্তু তিনি জানান এই কাজ তাঁর নয়। নিজ পক্ষের সমর্থনে তিনি বলেন, ” উইকিপিডিয়ায় এডিটিংয়ের জন্য সেখানে অ্যাকাউন্ট থাকতে হয়। যা তাঁর নেই। তাছাড়া যে কাম্পিউটার থেকে এডিটিং করা হয়েছে, তার আইপি অ্যাডড্রেস বিজয়ওয়াড়ার কোনও সার্ভারের। সুতরাং তাঁর এটা করার কোনও প্রশ্নই নেই।”

আরও পড়ুন: সত্যি কী রিমেক ‘হইচই আনলিমিটেড’! সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

সম্প্রতি গোটা বিষয়টা খোলসা করে, তিনি ফেসবুকে একটি খোলা চিঠি লেখেন। যেখানে তিনি জানান, “হইচই আনলিমিটেড’ আমার লেখা মৌলিক গল্প। এখনও দেশি বা বিদেশী ছবি থেকে আংশিক বা পুরো টুকে ছবি করার ইচ্ছে হয় নি, হলে জানিয়ে করবো। কেউ কেউ আছেন জানিয়ে করেন, তাঁদের সেলাম। অনেকেই আছেন না জানিয়েই এই কম্মটি করেন, আশা করবো আমার বন্ধু ইন্দ্রনীল সে সব অনুপ্রাণিত ছবি নিয়ে দু চার টে টুইট করবেন। (*প্রমাণ সহ, তা না হলে আবার দেওয়ালে মা কালী লটকাতে হবে)। যা নিয়ে এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে নোংড়ামি।