লন্ডন: গত অগাস্টে অ্যাশেজের প্রথম টেস্টে এজবাস্টনে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। কিন্তু মাত্র চার ওভারের বেশি দীর্ঘস্থায়ী হয়নি তাঁর বাইশ গজের মেয়াদ। কাফ মাসলে চোটের কারণে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল তারকা ইংরেজ পেসার জেমস অ্যান্ডারসনকে। এরপর গোটা অ্যাশেজ সিরিজ তো বটেই, চোটের কারণে ২২ নভেম্বর থেকে শুরু হতে চলা নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধেও টেস্ট সিরিজে তাঁকে ছাড়াই মাঠে নামবে থ্রি-লায়ন্সরা।

তবে আশার কথা ইংরেজ ক্রিকেট অনুরাগীদের জন্য। পোচেফস্ট্রুমে অনুশীলন শিবিরে যোগদান করতে চলেছেন ৩৭ বছরের এই তারকা পেসার। সব ঠিক থাকলে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টেস্ট সিরিজে ফের বাইশ গজে আগুন ঝরাতে দেখা যাবে অ্যান্ডারসনকে। ইংল্যান্ডের পুরুষ ক্রিকেট দলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর তথা প্রাক্তন স্পিনার অ্যাসলে জাইলস আশাবাদী দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে পাঁচদিনের ক্রিকেটে দেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিকে পাওয়ার ব্যাপারে।

আরও পড়ুন: স্বপ্নের বোলিং কম্বিনেশন, শামি-যাদবদের বিরাট প্রশংসায় কোহলি

তাঁর কথায়, ‘পোচেফস্ট্রুমে অনুশীলন শিবিরের জন্য প্রস্তুত জিমি। আমরা আশাবাদী। আমাদের মনে হয় ও সঠিক কন্ডিশনেই রয়েছে। যত বয়স বাড়বে তত এই চোট-আঘাত সমস্যা দীর্ঘস্থায়ী হবে। তবে মেডিক্যাল টিম ওকে নিয়ে খুশি।’ জাইলস আরও জানিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রিণ টপ উইকেটে জিমিকে আমাদের খুব দরকার। তাই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ছোট্ট সফরের জন্য ওকে কোনরকম জোর দেওয়া হয়নি। প্রাক্তন তারকা স্পিনারের কথায়, ‘দক্ষিণ আফ্রিকায় যে পিচে খেলা হবে সেটা ভীষণ আকর্ষণীয়। আমাদের ধারণা একদম সবুজ উইকেটে সেখানে লড়াইটা হবে মূলত বোলারদের।’

আরও পড়ুন: করিমের ৫ উইকেট, সিরিজে সমতা ফেরাল আফগানিস্তান

জাইলসের সংযোজন, বিষয়টা এমন নয় যে জোফ্রা আর্চার এবং জিমি অ্যান্ডারসন থাকায় আমরা এগিয়ে থাকব কিন্তু সিরিজটা নিঃসন্দেহে আকর্ষণীয় হবে। উল্লেখ্য, ইংল্যান্ডের হয়ে ১৪৯টি টেস্ট খেলা অ্যান্ডারসন পেস বোলার হিসেবে বিশ্বের সর্বাধিক উইকেট শিকারি। সর্বাধিক উইকেট শিকারের তালিকায় সবমিলিয়ে চতুর্থস্থানে তিনি। স্বাভাবিকভাবেই জিমির অন্তর্ভুক্তি দলের বোলিং শক্তি অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।