স্টাফ রিপোর্টার,বারাকপুর:সম্পত্তির লোভে বৃদ্ধ দাদুকে পিটিয়ে খুন করে বাড়ির সিঁড়ির ঘরে ঝুলিয়ে দিল নাতি এবং নাতবৌ। ঘটনাটি ঘটেছে, ভাটপাড়া থানার স্থিরপাড়া এলাকায়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত নাতি এবং তার বৌকে গ্রেফতার করেছে ভাটপাড়া থানার পুলিশ। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ঐ এলাকায়।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ঐ বৃদ্ধের নাম লক্ষণ চৌধুরী (৭০)। তিনি ভাটপাড়া এলাকার অ্যাংলো ইন্ডিয়া জুটমিলের অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক ছিলেন। গত একবছর আগে তাঁর স্ত্রী এবং মেয়ে শারীরিক অসুস্থতার কারণে মারা গিয়েছেন। এরপর থেকেই মেয়ের ঘরের নাতির সংসারেই থাকতেন তিনি।

এই বিষয়ে মৃতের প্রতিবেশীরা অভিযোগ করে জানিয়েছেন, বৃদ্ধ লক্ষণ চৌধুরী অন্যান্য দিনের মত, মঙ্গলবার সকালেও প্রাতভ্রমণে বেরিয়ে সকাল ৯ টার সময় বাড়ি ফিরে আসেন। এরপর লক্ষণ বাবুর নাতি রঞ্জিত ও তার স্ত্রী রীনা তাঁকে সম্পত্তি লিখে দেওয়ার নামে শারীরিক নির্যাতন শুরু করে।

অভিযোগ, তিনি এত তাড়াতাড়ি তাঁর নাতির নামে পুরো সম্পত্তি লিখে দিতে রাজি ছিলেন না। তা নিয়েই ওই বৃদ্ধের উপর নাতি রঞ্জিত ও নাতবউ রীনা দিনের পর দিন শারীরিক নির্যাতন করত। বৃদ্ধ সেই অত্যাচারের কথা প্রতিবেশী ও অন্য আত্মীয়দের জানিয়েও ছিল। মঙ্গলবারও অশান্তি চরমে ওঠে। কিন্তু, কিছুক্ষন পরে ওই বৃদ্ধের আর কোনও সাড়া শব্দ পাননি প্রতিবেশীরা। পরে প্রতিবেশীরা তাঁর বাড়িতে গিয়ে দেখেন, বৃদ্ধ রক্তাক্ত অবস্থায় সিঁড়ির ঘরে ঝুলছে। পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছে নাতি ও তার বৌ।
এরপরই স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে খবর দেওয়া হয় ভাটপাড়া থানায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ভাটপাড়া থানার পুলিশ এবং বৃদ্ধের পরিবারের অন্য সদস্যরা। এদিকে ওই বৃদ্ধকে খুন করা হয়েছে বলে সকলেই অভিযোগ জানাতে থাকে পুলিশের কাছে। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে তা ময়না তদন্তে পাঠিয়ে দেয়।

এদিকে ওই বৃদ্ধকে খুন করা হয়েছে, নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত নাতি রঞ্জিত চৌধুরী ও তার স্ত্রী রীনা দাসকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করছে পুলিশ। এদিকে এই ঘটনায় অভিযুক্ত ওই দম্পতির কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা ও মৃতের পরিবারের অন্য আত্মীয়রা।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV