চোর চুরি করতে এলো চুরিও করলো যাওয়ার সময় সতীত্ব নিয়ে চলে গেলো। শুনে অবাক হয়ার মত কিছুই নেই এতে। কারণ চুরি করতে এসেছে চোর ধর্ষণ করে গিয়েছে এমন ঘটনা অনেক ঘটেছে। কিন্তু যদি বলা হয় দু’জন চোর মিলে একটি জলযানের সতীত্ব নিয়ে গিয়েছে, তখন? এইটুকু শুনে আপনি অবাক হবেন নাকি ভ্যবাচেকা খেয়ে জল খেয়ে মাটিতে বসে পরবেন এই নিয়ে চিন্তা করছেন নিশ্চয়! আপনার কনফিউশান না বাড়িয়ে ঘটনাটি তবে একটু ইন ডিটেইলে বলা যাক।

ঘটনার সুত্রপাত একটি গুদামঘর থেকে। ওখানে রাখা একটি ভেসেল অর্থাৎ বোটের ব্যাটারি চুরি করতে এসেছিল এক চোর দম্পতি। চুরির আগে দুজনেই ওই বোটের ছোট্ট ব্যাটারি কেবিনের ঢুকে উত্তেজিত হয়ে পড়ে, যৌনসঙ্গমে লিপ্ত হয়ে যায়। এরপর বোটের ছোট জানলা দিয়ে তাদের অন্তরঙ্গের মুহূর্তের ছবি দেখা যায়। ঘণ্টাখানেক উদ্দাম যৌনতার পর তারা ওই বোট কেবিন থেকে বেরিয়ে ব্যাটারিটি চুরি করে পালায়। এই ঘোটা ঘটনাটি ধরে পড়েছে গুদাম ঘরের সিসি টিভি ফুটেজে। বোটের মালিক এই দৃশ্য দেখে নিজেই হতবাক হয়ে গিয়েছে। এরকমও কি করে সম্ভব হতে পারে। ঘটানটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ায়।

বাড়ির মালিক মিস্টার কো সংবাদমাধ্যেমকে জানিয়েছেন। বোটের ওই ছোট্ট মতন জায়গায় কি করে মানুষ সেক্স করতে পারে তার ধারণার বাইরে। এটি লাভ বোট হয়ে গিয়েছে। ওই চোর দম্পতি রাতের অন্ধকারে আসে এরপর উদ্দাম সেক্সের পর চুরি করে পালায়। তিনি মজা করে বলেছেন কেনার পর থেকে তার এই বোটের গায়ে কেউ আঁচড় পর্যন্ত দিতে পারেনি। কিন্তু, এরা দু’জন আমার বোটের পুরো সতীত্ব নিয়ে চলে গিয়েছে। এখন ভেতরটা পুরো ফাঁকা কেউকে মুখ দেখাতেও পারবেনা। পুলিশ সিসি টিভি ফুটেজ ওই চোর দম্পতিকে ধরার চেষ্টা করছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে এই চোর দম্পতি কতটা এক্সপার্ট হলে এই ছোট্ট জায়গাতেও তারা শারীরিক চাহিদা মিটিয়ে নিতে পারলো সহজে।