মুম্বই: ‘বচ্চন’ যেন আজও পৃথিবীতে ওই একজনেরই পদবী। বিখ্যাত এই পদবীর সঙ্গে যেন জুড়ে আছে অমিতাভের ক্যারিশ্মা। সেই পদবী নিয়েই গল্প শোনালেন অভিনেতা নিজে। তাঁর বাবার পদবী কিন্তু আসলে বচ্চন ছিল না।

সম্প্রতি একটি ব্লগে এই বিষয়ে লিখেছেন তিনি। আসলে বর্ণ বিদ্বেষের বিরোধিতা করতেই মূলত এই পদবী ব্যবহার করা শুরু করেছিলেন অমিতাভের বাবা।

তিনি লিখেছেন, ‘বচ্চন’ শব্দটি তাঁর বাবা ব্যবহার করেছিলেন শুধুমাত্র পেন নেম হিসেবে। তাঁর বাব ছিলেন বিখ্যার কবি হরিবংশ রাই বচ্চন। লেখালিখির সময় তিনি এই পদবী ব্যবহার করতেন।

অমিতাভ জানিয়েছেন, এই পদবী কোনও গোত্র বা বর্ণ নির্দেশ করে না। তাঁর বাবার কাছে বচ্চন শব্দটি ছিল কোনও নির্দিষ্ট জাতির বিকল্প।

হরিবংশ রাই বচ্চনের জন্ম হয়েছিল কায়স্থ পরিবারে। তাঁর আসল পদবী ছিল শ্রীবাস্তব। যেহেতু তিনি সব সময়ই বর্ণ বিরোধী ছিলেন, তাই বচ্চনের মতো একটি শব্দ তিনি বেছে নিলেন তাঁর ছদ্মনাম হিসেবে। কবি হিসেবে তাঁর নাম সেই থেকেহরিবংশ রাই বচ্চন হয়ে যায়।

অমিতাভ যখন স্কুলে ভর্তি হতে যান, তখন শিক্ষকরা জিজ্ঞেস করেছিলেন পদবী কী হবে? তাঁর মা এবং বাবা দ্রুত আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেন ভর্তির ফর্মে পদবী লেখা হবে বচ্চন। সেই থেকে পরিবারের পদবী হয়ে গেল বচ্চন। অর্থাৎ বংশে তিনিই বচ্চন পদবীধারী প্রথম পুরুষ।

তাঁর পরিবারের আদি পদবি যে শ্রীবাস্তব, সে কথা তিনি আগেও বলেছেন। তবে আসল গল্পটা এবার এল প্রকাশ্যে।