মুম্বই: তিনি হলেন বলিউডের শাহেনশাহ, তার এক কথাই একশো কথার সমান৷কিন্তু সম্প্রতি একটি ছবির মুক্তির জন্য কাতরভাবে আর্জি জানাতে হল তাঁকে৷

সুজিত সরকার পরিচালিত বহুপ্রতিক্ষিত ‘শুবাইট’ ছবি রিলিজ নিয়ে দুই প্রযোজনা সংস্থার মধ্যে এখন দ্বন্ধ চলছে৷ এই ঝামেলার জেরে মুক্তি আটকে গিয়েছে ছবিটির৷বেশ কয়েকদিন আগে প্রযোজক সংস্থাগুলির এমন আচরণে বেশ ক্ষুব্ধ হন পরিচালক সুজিত সরকার৷ তিনি প্রকাশ্যে মন্তব্য করেন যে বাণিজ্যিক কারণে অমিতাভজির কাজকে অসম্মান করছে প্রযোজক সংস্থাটি৷যদিও বিষয়টি নিয়ে সেই সময় বিগ বি সেভাবে মুখ না খুললেও অবশেষে তাঁর ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙে যায়৷ ট্যুইটারে আবেদন জানান৷

সম্প্রতি তিনি ট্যুইটারে লেখেন, “প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ….ইউটিভি এবং ডিজনি আপনারা দয়া করে ছবিটি মুক্তি হতে দিন৷ অনেক কষ্ট করে এই ছবিটি বানানো হয়েছে৷ আপনারা সৃজনশীলতা এরকমভাবে মারবেন না৷”

ইতিমধ্যে এই ট্যুইট ঘিরে বলিউডের অনেক অভিনেতা অভিনেত্রী এবং তাঁর অনুরাগীরা দুঃখপ্রকাশ করেছেন৷অমিতাভজির মতো এত প্রবীণ অভিনেতাকেও প্রযোজকদের সামনে একটি ছবি নিয়ে বিনয়ী হতে হচ্ছে, বিষয়টি মানতে পারছেন না অনেকেই৷ ছবিতে বিগ বি ছাড়াও অভিনয় করছেন দিয়া মির্জা, জিমি শেরগিলের মতো অভিনেতারা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।