দেবময় ঘোষ, কলকাতা: কার্যকরী সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডার উপরেই সম্পূর্ণ পশ্চিমবঙ্গের ভার ছেড়ে দিচ্ছেন না। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি তথা দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র তীক্ষ্ণ নজর থাকবে পশ্চিমবঙ্গের দিকে। শুধু পশ্চিমবঙ্গই নয়, দেশের পূর্বাঞ্চলের দিকেও কড়া নজর রেখেছেন অমিত। প্রাথমিক ভাবে দুটি কারণ, এক) দেশের পূর্ব ত-উত্তর পূর্ব সীমান্ত অনুপ্রবেশ সমস্যায় জর্জরিত। দুই) দেশের পূর্ব এবং উত্তরপূর্ব বিজেপির রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল।

১১ সেপ্টেম্বর রাতে দিল্লিতে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব অমিত শাহ’র সঙ্গে মিলিত হন। সেখানে, ছিলেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, সুব্রত চট্টোপাধ্যায়, অরবিন্দ মেননরা। ২০২১ সালের মহাগুরুত্বপূর্ণ রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের জন্য টিম সাজিয়ে দিয়েছেন অমিত। সেখানেই তিনি রাজ্য নেতৃত্বকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, লোকসভা নির্বাচনের মতই বিধানসভা নির্বাচনের আগেও বারবার পশ্চিমবঙ্গে আসবেন অমিত শাহ।

লোকসভায় রাজ্যে প্রায় ১৬-১৭ টি জনসভা করেছেন অমিত শাহ। কলকাতায় ‘রোড শো’ করেছেন। ফলাফল হাতেনাতে পেয়েছে রাজ্য বিজেপি। কিন্তু, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর রাজ্যে একবারও আসেননি অমিত। তিনি নিজেও চাননা যে বাংলার মানুষের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ স্তব্ধ হোক। সেক্ষেত্রে, পার্টির ভবিষ্যৎ সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডার সঙ্গে বা এককভাবে পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক বা কেন্দ্রীয় সরকারি কার্যক্রমে উপিস্থিত থাকবেন স্বয়ং অমিত শাহ।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের সময় ভাষণ গুলিতে NRC নিয়ে নিজের এবং পার্টির অবস্থান পরিষ্কার করেছেন অমিত। বলেছিলেন, NRC বাংলার একমাত্র রাজনৈতিক ইস্যু। লোকসভা ভোটের প্রধান ইস্যু NRC। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি মনে করেন, ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে NRC -ই পশ্চিমবঙ্গে প্ৰধান রাজনৈতিক ইস্যু। ১১ সেপ্টেম্বর রাতে রাজ্য নেতৃত্বকে পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন অমিত, পশ্চিমবঙ্গে NRC হবেই, তার জন্য পার্টির রাজনৈতিক প্রচারও তুঙ্গে তুলতে হবে। প্রচারের পুরোভাগে ঠকবেন অমিত শাহ নিজেই। তিনি শুধু জগৎ প্রকাশ নাড্ডার হাতেই এই দায়িত্ব দিয়ে দায়মুক্ত হতে চান না।

সূত্রের খবর, আলোচনায় অমিত শাহ বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে NRC এত সহজে চালু করা যাবে না। ভয়ঙ্কর বিরোধিতা করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গে NRC চালু এবং জম্মু-কাশ্মীরে আর্টিকেল 370 বিলোপ প্রায় একই রকম হয়ে যেতে পারে। কারণ কাশ্মীরে স্থানীয় রাজনৈতিক দল এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তিগুলি 370 বিলোপের বিরোধিতা করেছে, একইভাবে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল এবং বাম এবং কংগ্রেস NRC এর বিরোধিতা করছে। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে খুব সহজে NRC চালু করা সম্ভব নয়। সার্বিক জনসচেতনতার প্রয়োজন।

১১ সেপ্টেম্বরের বৈঠক নিয়ে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব মুখে কুলুপ এঁটেছেন। কোনও নেতাই সেভাবে কিছু বলতে চাইছেন না। স্বাভাবিকভাবেই সংবেদনশীল আলোচনা প্রকাধ করতে রাজি নন অনেকেই। যদিও জানা গিয়েছে, ২৭ সেপ্টেম্বর জগৎ প্রকাশ নাড্ডা কলকাতায় আসে NRC নিয়ে অনেক প্রশ্নের জবাব দেবেন। অক্টোবরেই রাজ্যে দূর্গা পুজো উদ্বোধন করতে আসছেন অমিত শাহ। অক্টোবর থেকেই রাজ্যে আবার নতুন সফরসূচির সূচনা করবেন অমিত। বৃহস্পতিবার যেমন মুকুল রায়ও বলেছেন, “অমিত জি বার বার বাংলায় হবেন। ঠিক যেরকম লোকসভায় এসেছিলেন। নাড্ডা জিও আসবেন, অমিত জিও আসবেন।”