স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পাশে তখন মুকুল রায় বসে আছেন৷ কলকাতায় সাংবাদিক সম্মেলন করছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ এক সাংবাদিকের প্রশ্ন, আপনারা চিটফান্ড নিয়ে এত কিছু বলছেন, কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের প্রশ্ন বিজেপি চিটফান্ড কাণ্ডে অভিযুক্তদের জায়গা দিয়েছে৷ পাশে বসা মুকুল রায় তখন কিছুটা বিব্রত৷ অমিতের সাফ জবাব, ‘‘আমরা যখন কাউকে দলে নিয়েছি, তখন রেকর্ড চেক করেই দলে নিয়েছি৷ তদন্ত হলে ‘দুধ কে দুধ, পানি কে পানি হয়ে যাবে৷’’

রাজ্যে চিটফান্ড কাণ্ডে অভিযুক্ত মুকুল রায় তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গিয়েছেন নিজেকে বাঁচাতে এই দাবি অনেকদিন ধরেই করে আসছেন মুকুল৷ এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি যেন তাকে কিছুটা স্বস্তি দিলেন৷ সাংবাদিক সম্মালনের পর মুখে হাসি ছিল মুকুলের৷ তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘ভালোই হয়েছে কোনও সাংবাদিক ‘অমিতজি’কে ওই প্রশ্নটি করেছেন৷ এই ব্যাপারে দলের মতামত পরিষ্কার হয়ে গেল৷

বাংলায় শুধু এনআরসি বা সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ড বিলই নয়, চিট ফান্ডও যে নির্বাচনী অ্যাজেন্ডায় রয়েছে তা সোমবারের সাংবাদিক বৈঠকে স্পষ্ট করে দেন তিনি৷ তিনি বলেন, বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় এলে চিটফান্ড কেলেঙ্কারির অভিযুক্তদের সাদা হবে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতই আড়াল করার চেষ্টা করুক, কেউ ছাড় পাবে না৷

ছবি-মিতুল দাস।

অমিতের বক্তব্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার চিটফান্ড কেলেঙ্কারির সমস্ত প্রমাণ লোপাট করে দিয়েছে৷ দোষীদের আড়াল করার চেষ্ঠা হচ্ছে৷ ‘‘আমরা চাই চিটফান্ডের তদন্ত হোক৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার যখন থাকবে না, তখন চিটফান্ডের তদন্ত হবে৷’’