নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের বিভিন্ন দফায় বারে বারেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বাংলা৷ আর এবার শেষ দফার আগে সেই পরিস্থিতি চরম আকার ধারণ করল অমিত শাহের রোড শো-কে ঘিরে৷ গতকাল বিদ্যাসাগর কলেজে যে তাণ্ডব হয় এই রোড শো-কে ঘিরে, তার জন্য আঙুল তোলা হয় বিজেপির দিকে৷ বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় চরম পরিস্থিতিতে রাজ্য জুড়ে প্রতিবাদ মিছিলে নামে তৃণমূল থেকে বামফ্রন্ট৷ আর এরই মধ্যে দায়ের করা হল জোড়া এফআইআর৷

জানা গিয়েছে, আমহার্স্ট স্ট্রিট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন বিদ্যাসাগর কলেজের ছাত্রছাত্রীরা। পাশাপাশি, জোড়াসাঁকো থানায় বিজেপির বিরুদ্ধে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরাও এফআইআর দায়ের করে বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর৷ ২টি এফআইআর জামিন অযোগ্য ধারায় করা হয়েছে৷

গতকালের ঘটনায় অভিযোগ, কলেজের মধ্যে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে দেওয়া থেকে মারধোর, শ্লীলতাহানি হয়েছে৷ যার সঙ্গে বিজেপির কর্মী সমর্থকেরাই যুক্ত বলে অভিযোগ৷ সব মিলিয়ে ক্ষুব্ধ পড়ুয়ারা৷ বিজেপির বিরুদ্ধে তাই দায়ের করা হল জোড়া এফআইআর৷

এদিকে বুধবার যেখানে রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ মিছিলে নেমেছে অনেকেই, সেখানে এই ঘটনার দায় তৃণমূলের ওপরেই চাপালেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ বুধবার সকালে দিল্লিতে সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি সাফ জানিয়ে দেন, ‘হেরে যাওয়ার ভয়েই এই কাজ করছে তৃণমূল৷ ভোট ব্যাংকের রাজনীতির স্বার্থে মমতা গুন্ডারাই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে৷’

অমিত শাহ আরও জানান, তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে৷ কিন্তু এভাবে তাকে ভয় দেখিয়ে থামানো যাবে না৷

এদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক ও ট্যুইটার অ্যাকাউন্টের প্রোফাইলের ছবিও বদলে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মঙ্গলবার রাতেই দেখা যায় তাঁর ট্যুইটার অ্যাকাউন্টের প্রোফাইলে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের ছবি দেওয়া রয়েছে৷ এও এক প্রতিবাদের ভাষা, মনে করছে শাসক দলের নেতৃত্ব৷