নয়াদিল্লি: তৃতীয় দফায় ভোট হচ্ছে ১১৭টি কেন্দ্রে। এই দফাতেই সবথেকে বেশি কেন্দ্রে রয়েছে ভোট। এদিন ভাগ্য নির্ধারণ হবে একাধিক হেভিওয়েট প্রার্থীর।

অমিত শাহ: এবারই প্রথম লোকসভা নির্বাচনে লড়ছেন মোদীর সেনাপতি অমিত শাহ। গুজরাতের গান্ধীনগর কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়ছেন তিনি। এর আগে এই কেন্দ্রের দীর্ঘদিনের সাংসদ ছিলেন আদবানী। এবারই সেখান থেকে প্রথম টিকিট দেওয়া হয়েছে অমিত শাহকে। তৃতীয় দফায় সেই কেন্দ্রে রয়েছে ভোট।

প্রচারের শিডিউলের মধ্যেই এদিন সকালেই কেন্দ্রে হাজির হন অমিত শাহ। গুজরাতের আমেদাবাদে গিয়ে ভোটও দিয়েছেন তিনি।

রাহুল গান্ধী: এবারই প্রথম দ্বিতীয় কেন্দ্র থেকে লড়ছেন রাহুল গান্ধী। আমেঠির সাংসদ তিনি। তবে এবার তিনি লড়ছেন কেরল থেকেও। ওয়াণাড় থেকে প্রথমবার ভোটে লড়ছেন রাহুল গান্ধী। এদিন ভোট রয়েছে সেখানেও।

বরুন গান্ধী: তৃতীয় দফায় পিলভিট কেন্দ্রে রয়েছে ভোট। এবার এই কেন্দ্রের নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এই কেন্দ্রে বেশ কয়েক বছরের সাংসদ মানেকা গান্ধী। কিন্তু এবার বদল হয়েছে কেন্দ্র। পিলভিট থেকে লড়ছেন মানেকার ছেলে বরুণ গান্ধী।

শশী থারুর: তৃতীয় দফায় ভোট রয়েছে কেরলের তিরুঅনন্তপুরম কেন্দ্রে। আর সেই কেন্দ্রের হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে নজর থাকছে শশী থারুরের দিকেই।

এই কেন্দ্রে আজ পর্যন্ত কোনোদিনই দখল করতে পারেনি বিজেপি। তাই এবার গেরুয়া শিবিরের প্রানপন চেষ্টা রয়েছে সেই কেন্দ্র দখলের। অন্যদিকে, টিকে থাকার লড়াই কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরের।

মুলায়ম সিং যাদব: দেশের ভোটে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা উত্তরপ্রদেশেই। তাই সেই রাজ্যের সব কেন্দ্রেই নজর থাকে দেশের। আর তৃতীয় দফায় ভাগ্যনির্ধারণ হবে মুলায়ম সিং যাদবের।

দীর্ঘদিনের পারিবারিক কেন্দ্র মইনপুরী থেক লড়ছেন মুলায়ম সিং যাদব। এবার তাঁর দল সপার সঙ্গে হাত মিলিয়েছে মায়াবতীর দল বিএসপি। মুলায়মের হয়ে প্রচারে এসে ২৪ বছরের বরফ গলিয়েছেন মায়াবতী নিজে।

সম্বিত পাত্র: বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র তিনি। আর এবার তিনি লড়ছেন ওড়িশার গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র থেকে। পুরী থেকে ভোটে লড়ছেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে রয়েছেন জয়ী সাংসদ বিজেডির মুখপাত্র পিনাকী মিশ্র।