নয়াদিল্লিঃ  মোদীর বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে বিরোধীরা। সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন এবার মোদী সরকার পাবে কিনা তা নিয়ে বারবার সন্দেহ প্রকাশ করছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সেটা যে শুধুই কথার কথা তা আরও একবার বুঝিয়ে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। তাঁর দাবি, ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনের তুলনায় এবার আরও বেশি আসন পাবে বিজেপি। তাঁর মতে, দেশের পূর্বদিকের ও উপকূলবর্তী রাজ্যগুলিতে এবার ভালো ফল করবে দল। শুধু তাই নয়, অমিত শাহ জানিয়েছেন, বিগত সাধারণ নির্বাচনে ২৮২টি আসন পেয়েছিল বিজেপি। এবার আরও ৫৫টি নতুন আসনে জয় পেতে চলেছে তারা।

কিন্তু গতবার প্রবল মোদী ঝড়ে গোটা দেশজুড়ে ১২০টি আসনে হারতে হয়েছিল বিজেপিকে। কিন্তু অমিত শাহের আশা, গতবারে হেরে যাওয়া এমন ৫৫টি আসন বিজেপির কাছেই আসবে। এবার লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দিক থেকেই বাংলার দিকে বিশেষ নজর রয়েছে অমিত শাহের। শুধু পশ্চিমবঙ্গই নয়, ওডিশাতেই নজর বিজেপির। আর সেই প্রসঙ্গে শাহ জানিয়েছেন, বাংলায় তাঁরা ২৩টির বেশি আসন পাবেন। পাশাপাশি ওডিশাতেও আসন সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে ১৩-১৫টি।

অন্যদিকে, কেন্দ্রে মোদী সরকারের আমলে দেশের জনগণ নিজেদের অনেক বেশি সুরক্ষিত মনে করছেন বলে দাবি করেছেন অমিত শাহ। আর এই প্রসঙ্গে, সার্জিকাল স্টাইক ও বালাকোটে বায়ুসেনার বিমানহানার উল্লেখ করেছেন তিনি। বিজেপি সভাপতি বলেন, ‘২০১৪-র সার্জিকাল স্টাইক ও বালাকোটে বায়ুসেনার বিমানহানার পর মানুষ নিজেকে সুরক্ষিত ও গর্বিত মনে করছে। এই বিষয়ে তারা মোদী সরকারকে পূর্ণ সমর্থন জুগিয়েছে।’

পাশাপাশি, গেরুয়া শিবির সেনাদের নিয়ে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস সহ বিরোধী দলগুলি। এই অভিযোগ নস্যাত্ করে দিয়েছেন শাহ। বাংলা এই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকেও আক্রমণ শানাতে ছাড়েননি অমিত শাহ। পরিবারতন্ত্র নিয়ে রাহুল গান্ধী এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে আক্রমণ শানিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। সূত্র-বাংলা এক সংবাদমাধ্যম।