স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানেই যাচ্ছেন, ভূত দেখছেন অমিত শাহ আর নরেন্দ্র মোদী। এনআরসি ও সিএএ বিরোধী আন্দোলন নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানেই যাচ্ছেন সেখানেই লাখো লাখো মানুষ তাঁর সঙ্গে হাঁটছেন। আর সেই সব দেখেই অমিত শাহ আর নরেন্দ্র মোদীরা ভুত দেখছেন। শনিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার একটি প্রতিবাদ সভায় ঠিক এই ভাষাতেই গেরুয়া শিবিরকে বিঁধলেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য।

তিনি আরও বলেন, ”ধর্ম নিরপেক্ষ ভারত। আর সেই ভারতে ধর্ম নিয়ে ভেদাভেদ করার চেষ্টা চলছে। গণতান্ত্রিক দেশের মানুষ ভোট দিয়ে কেন্দ্রে বসিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহদের। আর তাঁরাই এখন তাঁদের দেশ থেকে তাড়ানোর চেষ্টা করছেন। এটা আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোনও ভাবেই বাংলা তথা অন্যান্য রাজ্যে লাগু করতে দেবেন না। তাই তিনি বাংলা ছাড়াও অন্যান্য রাজ্যের পাশে থেকে এই আন্দোলন করে চলেছেন।”

শনিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের ডাকে, পুরসভা ভিত্তিক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। সেই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয় তমলুক পুরসভার সভা কক্ষে। এদিনের অনুষ্ঠানে এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে আলোচনা করা সময় একথা মহিলাদের সামনে তুলে ধরেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা রাজ্য মহিলা সেলের সভানেত্রি চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য।

এদিন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ছাড়াও প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন, তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু আধিকারী। তিনি বলেন, কেন্দ্র সরকার নোট বাতিল নিয়ে দেশের মানুষকে যেভাবে হয়রানিতে ফেলেছিল, ঠিক সেইভাবে এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে মানুষকে হয়রানি করার চেষ্টা করে চলেছে। তিনি আরও বলেন, ”আমাদের নেত্রী সর্বস্তরের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে তার প্রতিবাদ করে চলেছেন। তাঁর সঙ্গে লাখো লাখো মানুষ সামিল হয়েছে। বাংলা তথা অন্যান্য রাজ্যেও যাতে এনআরসি ও সিএএ এর কোনও প্রভাব যাতে না পড়ে তার বিরুদ্ধে এই আন্দোলন চলবে।”