স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শনিবার রাজ্যে আসছেন না বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ যদিও শুক্রবার দুপুরে দিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠকে অমিত জানিয়ে ছিলেন তিনি শনিবার কলকাতায় আসবেন৷ এর মধ্যেই দিল্লির ১১ নম্বর অশোকা রোডে বিজেপির সদর দফতরে খবর পৌঁছায় হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ সিঙ্গল বেঞ্চের রায়ে খারিজ করে দিয়েছে৷ তারপরও কেন দলের সভাপতি রাজ্য সফর বাতিল করলেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা৷

আরও পড়ুন: ‘বাংলায় রথ আটকালে হাসপাতালে নয়তো শ্মশানে যেতে হবে’

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু Kolkata 24×7কে বলেন, ‘‘শনিবার আসছেন না সভাপতি অমিত শাহ৷ বরং শনিবার রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেবেন তিনি কবে বাংলায় আসবেন ও কোথায় সভা করবেন৷’’ হাইকোর্টের নির্দেশ আগামী বুধবার রাজ্যের মুখ্য ও স্বারষ্ট্র সচিবকে বিজেপির তিন নেতার সঙ্গে রথযাত্রা বিষয়ে আলোচনা করতে হবে৷ অনেকেই অনুমান করছেন কলকাতা হাইকোর্টে বিজেপির এই নৈতিক জয়ের খবর পাওয়ার পরই নিজের কলকাতা যাওয়ার সিদ্ধান্ত বদল করেছেন অমিত শাহ৷

রাজ্য বিজেপির অন্দরের খবর, হাইকোর্টের রায়ে নৈতিক জয় এসেছে৷ কিন্তু পুরোপুরি মেলেনি রথযাত্রার অনুমতি৷ আপাতত কোর্টের রায়ে আগামী বুধবার দলীয় তিন নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন রাজ্যের শীর্ষ আধিকারীকরা৷ ফলে মুরলিধর সেন লেনের নেতারা ব্যস্ত থাকবেন বুধবারের আলোচনার কৌশল তৈরিতে৷ তাই রাজ্যে এসে তাদের ব্যতিব্যস্ত করতে চান না দলের সর্বভারতীয় সভাপতি৷

তবে ঘোষণার পরও অমিত শাহের রাজ্যে না আসায় অন্য গন্ধ পাচ্ছেন অনেকে৷ এদিন কোর্টে বিজেপির আইনজীবীকে শুনতে হয় কর্মসূচি স্থির করার এতদিন পরে এসে অনুমতির জন্য কেন তারা আদালতের দ্বারস্থ হলেন৷ এতেই প্রকাশ্যে আসছে গেরুয়া শিবিরের রাজ্য নেতৃত্বের পরিকল্পনাহীনতা৷ সূত্রের খবর, এজন্য দিলীপ ঘোষদের উপর যথেষ্ট বিরক্ত সংগঠনের চাণক্য অমিত শাহ৷ মনে করা হচ্ছে এতে দলের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের নেতৃত্ব নিয়েও ভুল বার্তা যাচ্ছে রাজ্যবাসীর কাছে৷ এছাড়াও রথযাত্রা নিয়ে দলীয় সভাপতির রাজ্যে আসা যাওয়ার বারংবার সময় বদল নিয়েও ক্ষোভ রয়েছে৷

আরও পড়ুন: হাইকোর্টে নৈতিক জয়ে রথ ছোটানোর ভাবনা বিজেপির

তাই একদিকে বুধবারের বৈঠকের আগে দলীয় সংগঠন গোছাতে দলীয় নেতৃত্বকে সময় দেওয়া, অন্যদিকে রাজ্যে না এসে মুলীধর সেন লেনের নেতাদের অসন্তোষের বার্তা দিয়ে গেলেন গেরুয়া দলের মসিহা৷