স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: রাজীব বনাম অরূপ দৌড়ে বেকায়দায় হাওড়ার তৃণমূল। এমন সময়েই গ্রামীণ হাওড়ায় আসছেন অমিত শাহ। যেহেতু হাওড়া গ্রামীণে রাজীবের প্রভাব বেশ কিছুটা রয়েছে তাই অমিত শাহের এই গ্রামীণ হাওড়ায় আগমন এবং ঠাসা কর্মসূচী নিয়ে তা যে রাজনৈতিক মহলে ভোটের বড় ‘খেলা’র বার্তা দিচ্ছে তা স্পষ্ট। সূত্রের খবর সেই দিনেই দল পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের।

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ হাওড়ার একাধিক নেতা এখন তৃণমূলে ‘বেসুরো’। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই ছেড়েছেন মন্ত্রিত্ব। একইভাবে আগেই পদ ছাড়েন লক্ষ্মীরতন শুক্ল। দলবিরোধী কথা বলার অভিযোগে তো বৈশালী ডালমিয়াকে দল থেকেই ছেঁটে ফেলেছে তৃণমূল। বেঁকা পথে হাঁটার ইঙ্গিত দিচ্ছেন জেলার প্রাক্তন মেয়র রথীন চক্রবর্তী। এসবের মাঝে হেভিওয়েটদের মধ্যে একমাত্র সুরে অরূপ রায় ও তাঁর সাঙ্গপাঙ্গরা। এসবের মাঝেই অমিত শাহের হাওড়ার সফরনামা।

হাতেগোনা আর দু-একমাস। তারপরই বিধানসভা নির্বাচনে মেতে উঠবে বাংলা। শাসক থেকে বিরোধী এখন সবপক্ষই প্রচারে ব্যস্ত৷ হাওড়া গ্রামীণ জেলায় গেরুয়া শিবিরের জমিকে আরও শক্ত করতে উলুবেড়িয়ায় আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৩১ জানুয়ারী রবিবার দুপুরে একাধিক কর্মসূচি নিয়ে গ্রামীণ হাওড়ায় আসছেন অমিত শাহ।

হাওড়া গ্রামীণ জেলা বিজেপি সূত্রে খবর, ৩১ জানুয়ারী দুপুরে হাওড়া সদরে কর্মসূচি শেষ করে পাঁচলার একটি মাঠে চপারে নামবেন৷ তারপর রঘুদেবপুরে একটি তপশিলি পরিবারে মধ্যাহ্নভোজন সেরে পৌঁছে যাবেন উলুবেড়িয়া শহরে। উলুবেড়িয়া পৌরসভা থেকে লকগেট অব্ধি একটি রোড শোয়ে অংশ নেবেন অমিত শাহ। তারপর তিনি উলুবেড়িয়া কালীবাড়িতে গিয়ে পুজো দেবেন বলে জানা গেছে। কর্মসূচি শেষে কোলকাতা ফিরে যাবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। হাওড়া গ্রামীণ জেলা বিজেপির নবনিযুক্ত সভাপতি প্রত্যুষ মন্ডল বলেন,”আগামী ৩১ শে জানুয়ারি গ্রামীণ হাওড়ার মানুষ এক ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী থাকবেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।