নয়াদিল্লি: জঙ্গি নিশানায় কাশ্মীর। অমরনাথ যাত্রীদের দ্রুত ফিরতে বলা হয়েছে। পাক সেনা তাদের নৃশংস ব্যাট বাহিনীকে সীমান্তের এপারে পাঠিয়ে দিয়েছিল। যাদের খতম করেছে ভারতীয় সেনা। প্রকাশ করা হয়েছে সেই ছবিও। এই অবস্থায় সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের মুখোমুখি হলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

শুধু অজিত দোভালই নয়, সেই বৈঠকে রয়েছে আইবি প্রধান অরবিন্দ কুমার, র’-এর অফিসার সামন্ত গোয়েল. স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব গৌবা ও অন্যান্যা আধিকারিকরা।

গোয়েন্দা রিপোর্টে জানা গিয়েছে, একবার নয়, বারবার ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ করানোর চেষ্টা চালাচ্ছ পাকিস্তান। যার জন্য কয়েক হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে উপত্যকায়। তবে তীর্থযাত্রীদের দ্রুত উপত্যকা ছেড়ে ফিরে আসতে বলা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, ২৯ থেকে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে একাধিকবার ভারতে প্রবেশ করার চেষ্টা করেছে জঙ্গিরা। চার জঙ্গির দেহ পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে, তাদের দেহ ফেরাবে সেনা৷ তবে এজন্য পাকিস্তানকে সাদা পতাকা নিয়ে ভারতে আসতে হবে এবং শেষকৃত্যের জন্য ওই চার জঙ্গির দেহ নিয়ে যেতে হবে৷ এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্র জানাচ্ছে, এখনও ভারতের এই শর্তের জবাবে কোনও প্রত্যুত্তর দেয়নি ইসলামাবাদ৷ তবে শনিবারের এই ঘটনায় ফের একবার ভারতের দাবি প্রমাণিত, যে কাশ্মীরে ও সীমান্ত জুড়ে সন্ত্রাস ছড়ানোর পিছনে হাত রয়েছে পাকিস্তানের৷ এদিকে, রবিবার সকাল পর্যন্ত জম্মু কাশ্মীরের কেরান সেক্টরে ভারি গুলিবর্ষণের শব্দ শোনা গিয়েছে৷

ভারতীয় সেনা জানাচ্ছে, পাকিস্তানের দ্বিচারিতা প্রকাশ্যে৷ একাধিক নাশকতামূলক কার্যকলাপের পিছনে ইসলামাবাদেরই হাত রয়েছে৷ সেই সংক্রান্ত যাবতীয় প্রমাণ ভারতের হাতে রয়েছে৷ তবে ভারতীয় সেনা প্রত্যেকবারই পাকিস্তানের নাশকতার চেষ্টা ব্যর্থ করে এসেছে৷ শনিবারের ঘটনা তার প্রত্যক্ষ প্রমাণ৷